৭ দফা দাবিতে গোবিন্দগঞ্জে ছাত্র ইউনিয়নের বিক্ষোভ-সমাবেশ

শিক্ষার্থীদের সেমিস্টার-বেতন ও মেস ভাড়া মওকুফ, শিক্ষক-কর্মচারিদের জন্য বিশেষ প্রণোদনা ঘোষণা, অনলাইন ক্লাসে সব ছাত্রের অংশগ্রহণের সুযোগ নিশ্চিত করা, ব্যর্থ স্বাস্থ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ, করোনা পরীক্ষার ফি বাতিল, জেলায় পিসিআর ল্যাব এবং উপজেলায় একটি আইসোলেশন সেন্টার স্থাপন করে সবার জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করার দাবিতে গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলায় বিক্ষোভ-সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন।

মঙ্গলবার (২১ জুলাই) বিকাল ৪ টায় গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার সাপমারা ইউনিয়নের খামারপাড়া নামক স্থানে অনুষ্ঠিত এই বিক্ষোভ-সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ছাত্র ইউনিয়ন গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা সংসদের সভাপতি ও গাইবান্ধা জেলা সংসদের সহ-সভাপতি তাহমীদুর রহমান চৌধুরী তাহমীদ।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন গাইবান্ধা জেলা সংসদের সদস্য ও উপজেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক ফরিদ আহমেদ পাপ্পু, ছাত্র ইউনিয়ন গাইবান্ধা জেলা সংসদের সদস্য বৃটিস সরেন, ছাত্র ইউনিয়ন গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা সংসদের সদস্য সুজিত দেবনাথ, ছাত্র ইউনিয়ন সাপমারা অঞ্চল শাখার যুগ্ম আহবায়ক সুচিত্রা মুরমু তৃষ্ণা, ছাত্র ইউনিয়ন সাপমারা অঞ্চল শাখার সদস্য মোসে হেমব্রম ।

এর আগে শিক্ষার্থীরা ৭ দফা দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেন।

সমাবেশে ছাত্র নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারি-বেসরকারি সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের সেমিস্টার ফি সহ সকল বেতন মওকুফ ও মেসভাড়া মওকুফ করার ব্যবস্থা করতে শিক্ষার্থীদের জন্য রাষ্ট্রীয় ভাবে বিশেষ অর্থ প্রণোদনার দাবি জানান।

কিন্ডারগার্টেন বিদ্যালয় এবং নন এমপিও সহ নিয়মিত বেতন আওতার বাহিরের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষাক-কর্মচারিদের জন্য বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করার দাবিও জানান নেতৃবৃন্দ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, অনলাইন পাঠদান প্রক্রিয়াকে ছাত্রদের মধ্যে বৈষম্য সৃষ্টির অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার না করে এই ক্লাসে সকল শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণের সুযোগ নিশ্চিত করতে ছাত্রদের বিনামূল্যে ইন্টারনেট সেবা নিশ্চিতের জন্য প্রয়োজনীয় ডিভাইস সরবরাহের দাবি জানান।

তারা আরও বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে সরকার প্রথম থেকেই ব্যর্থ। ব্যর্থতা ঢাকতে এখন করোনা পরীক্ষার ওপর ফি ধার্য করা হয়েছে। যার ফলে গত কিছুদিন ধরে দেশে করোনা পরীক্ষার হার অনেক কমে গেছে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার ‘নো টেস্ট, নো করোনা’ নীতি গ্রহণ করেছে। এতে একদিকে মানুষ যেমন পরীক্ষা করাতে পারছে না অন্যদিকে হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসার অভাবে মারা যাচ্ছে রোগী। একই সঙ্গে রয়েছে দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় দুর্নীতি ও লুটপাট।

এসময় করোনাকালের শুরু থেকে নানাবিধ ব্যর্থতার দায়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে অবিলম্বে পদত্যাগ করার দাবি জানান নেতৃবৃন্দ।

করোনা পরীক্ষার ফি বাতিল, ২৪ ঘন্টায় নমুনা শনাক্তের জন্য জেলায় পিসিআর ল্যাব স্থাপন ও কোভিড অথবা নন কোভিড সকল রোগীর জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সের বাহিরে গোবিন্দগঞ্জে একটি আইসোলেশন সেন্টার স্থাপনেরও দাবি জানান তারা।