২০২০ সালে পৃথিবীতে ঝরে পড়তে পারে বিশালে এক গ্রহাণু

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক:

মহাকাশে ছোট অথবা বড় মাপের বিভিন্ন পাথরের টুকরো ঘুরে বেড়াচ্ছে। এই ধরনের বস্তু গ্রহাণু নামে পরিচিত। এমনই এক গ্রহাণু পৃথিবীর বুকে আছড়ে পড়ার পর ডায়ানোসর বিলুপ্ত হয়েছিল। সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন আগামী বছর পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে ১৯৯৮ (ও আর টু) নামের এক গ্রাহাণু।

আগামী বছর এপ্রিল মাসে পৃথিবীর সঙ্গে এই গ্রহাণুর সংঘাত হতে পারে। ইতিমধ্যেই এই গ্রহাণুটি পর্যবেক্ষণ শুরু করেছেন নাসার বিজ্ঞানীরা।

নাসার বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন ১৯৯৮ (ও আর টু) গ্রহাণুর ব্যাস ১৩৫০০ ফুট। ২০২০ সালের ২৯ এপ্রিল পৃথিবীর গা ঘেঁষে চলে যেতে পারে এই গ্রহাণু। ঐ সময় বিকাল ৩ টা ২৬ মিনিটে পৃথিবীর সবথেকে কাছে থাকবে ১৯৯৮ (ও আর টু)। পৃথিবীর কেন্দ্রবিন্দু থেকে ৩৯ লক্ষ মাইল দূরে থাকবে এই গ্রাহাণুটি। এই দূরত্ব শুনে নিজেকে সুরক্ষিত মনে করছেন? বিভিন্ন কারণে মহাকাশে গ্রহাণুর পথ পরিবর্তন হয়। আর তা হলে পৃথিবীর বুকে আছড়ে পরতে পারে বিশাল এই গ্রহাণুটি।

এর মধ্যে প্রথম কারণ হল ইয়ার্কোভসি এফেক্ট। যা গ্রহাণুর সেমি মেজর অ্যাক্সিসে প্রভাব ফেলতে পারে। বাহ্যিক বা অভ্যন্তরীণভাবে উৎপাদিত তেজস্ক্রিয়তার কারণে গ্রহাণুর তাপমাত্রায় পরিবর্তনের ফলে এই ঘটনা ঘটতে পারে। এর ফলে গ্রহাণুটি ঘুরে যেতে পারে, এমনকী, কক্ষপথের পরিবর্তন হতে পারে। ১৯৯৮ (ও আর টু) মহাকাশের অন্যতম উজ্জ্বল ও বড় গ্রহাণু।

এছাড়াও মহাকাশে অন্যান্য গ্রহের পাশ থেকে যাওয়ার সময় সেই গ্রহের মাধ্যাকর্ষণ শক্তির কারণে গ্রহাণুর পথ পরিবর্তন হতে পারে। এই গ্রহাণু পৃথিবীতে আঘাত করলে পৃথিবীর আবহাওয়া ও বায়ুমন্ডলীয় অবস্থায় বড় পরিবর্তন আসতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.