হাজারো মানুষের সম্মিলনে সাম্প্রদায়িক ‘সহিংসতা বিরোধী’ কনসার্ট

হাজারো শিক্ষার্থী-জনতার সম্মিলন ঘটিয়ে গান-কবিতা-নাচ-অভিনয়ের মূর্ছনায় স্লোগানে স্লোগানে সারা দেশে সংঘটিত সাম্প্রদায়িক সহিংসতার প্রতিবাদ জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

গতকাল শুক্রবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে আয়োজন করা হয় ‘সহিংসতা বিরোধী কনসার্ট। এ কনসার্টকে ঘিরেই যেন সাম্প্রদায়িক সহিংসতার প্রতিবাদ করতে জড়ো হয়েছিলেন হাজারো মানুষ।

কনসার্টের অন্যতম আয়োজক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাবেক শিক্ষার্থী, ছাত্র ইউনিয়ন ঢাবি শাখার সাবেক সভাপতি তুহিন কান্তি দাশ বলেন, “আমরা সারা দেশকে জানান দিতে চেয়েছি যে দেশের যে কোন ক্রান্তি লগ্নে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা এখনও বুক চিতিয়ে লড়াইয়ের সামর্থ রাখে। সেটা যে কোন মাধ্যমে হতে পারে। আজকে আমরা সাম্প্রদায়িক সহিংসতার বিরুদ্ধে দাড়িয়েছি সাংস্কৃতিক ফ্রন্ট খুলে”।

তিনি আরও বলেন, “আমরা চাই দেশে সকল সম্প্রদায়ের মানুষ মিলেমিশে থাকবে। একে অন্যের সহযোগিতায় পাশে দাঁড়াবে’’।

তুহিন কান্তি দাশ বলেন, “সাম্প্রদায়িক সহিংসতা প্রতিরোধে একদিকে যেমন রাজনৈতিক-অর্থনৈতিক লড়াই চালিয়ে যেতে হবে, অন্যদিকে সাংস্কৃতিক লড়াইটাও অব্যাহত রাখতে হবে”।

“অবিলম্বে সাম্প্রদায়িক সহিংসতায় জড়িতদের গ্রেপ্তার ও শাস্তি’’ দাবি করেন তুহিন।

এর আগে শুক্রবার দুপুর থেকেই কনসার্ট উপভোগ করতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা জড়ো হতে শুরু করেন। এরপর ক্রমেই ঢল নেমেছে মানুষের। শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি নানা শ্রেণি-পেশা ও বয়সের সাধারণ মানুষও এসে মজেছিলেন টিএসসিতে।

সহিংসতা বিরোধী কনসার্টে শিরোনামহীনসহ সহজিয়া, মেঘদল, বাংলা ফাইভ, শহরতলি, গানপোকা, গানকবি, কৃষ্ণপক্ষ, কাল, অবলিক, অর্জন, গঞ্জে ফেরেশতা, বুনোফুল ব্যান্ড তাদের পরিবেশনা উপস্থাপন করেন।

গানের পাশাপাশি কবিতা আবৃত্তি, মূকাভিনয়, নৃত্যও পরিবেশন করা হয় সম্প্রীতির চেতনায়।

হাজারো মানুষের সমুদ্রে স্লোগান উঠেছিলো অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশের দাবিতে। ‘হিন্দু নাকি মুসলিম’ প্রশ্নের জবাবে আকাশ বাতাস কেঁপেছিলো ‘এক দেশ এক প্রাণ’ স্লোগানে।

ধর্ম নিয়ে রাজনীতি ও হানাহানি বন্ধের বিরুদ্ধে জেগে উঠেছিলো হাজারো কণ্ঠ। সে এক দেখার মতো দৃশ্য, শোনার মতো স্বর, উপভোগ করার মতো নেমেছিলো একটা দিন ও রাত।

Leave a Reply

Your email address will not be published.