হরতালে পুলিশি আক্রমণের প্রতিবাদে বাম জোটের বিক্ষোভ

দ্রব্যমূল্য কমানোর দাবিতে ২৮ মার্চের অর্ধদিবস হরতালে দেশব্যাপি পুলিশি হামলা- আক্রমণ, নেতা-কর্মীদের আহত ও গ্রেপ্তার করার প্রতিবাদে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

গতকাল (২৯ মার্চ ২০২২), মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৪টায় রাজধানীর পল্টন মোড়ে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক সাইফুল হক-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এই বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দলের সাধারণ সম্পাদক বজলুর রশিদ ফিরোজ, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সহকারী সাধারণ সম্পাদক মিহির ঘোষ, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক আবদুস সাত্তার, বাসদ-মার্কসবাদীর সমন্বয়ক মাসুদ রানা, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু, ওয়ার্কার্স পার্টি-মার্কসবাদীর সাধারণ সম্পাদক ইকবাল কবির জাহিদ, সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের আবদুল আলী।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার পুরোপুরি বেসামাল হয়ে দমন করে শাসন করার স্বৈরতান্ত্রিক পথ গ্রহণ করেছে। দ্রব্যমূল্যে নাকাল মানুষের পুঞ্জীভূত ক্ষোভকে প্রশমিত করতে খাদ্যের প্রয়োজনীয় যোগান দেবার পরিবর্তে সরকার রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস চালিয়ে মানুষের ক্ষোভ ও হাহাকার বিনাশ করতে চায়। মানুষকে বাঁচানোর বাম জোটের গণদাবির শান্তিপূর্ণ হরতালে পুলিশ ও সরকার দলীয় দু্বৃত্তরা কোন উসকানি ছাড়া যেভাবে হামলা আক্রমণ চালিয়েছে তা সরকারের ফ্যাসিবাদী দুঃশাসনের উলঙ্গ বহিঃপ্রকাশ।

নেতৃবৃন্দ বলেন, কোন হামলা-আক্রমণ ও দমন-নিপীড়ন চালিয়ে সরকার শেষ রক্ষা করতে পারবে না। মানুষের বাঁচার গণদাবি আদায়ে মুনাফাখোর বাজার সিন্ডিকেট আর এই দুরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে আগামীতে গণসংগ্রাম জোরদার করা হবে।

বাম নেতৃবৃন্দ হরতালে নেতা-কর্মীদের ওপর হামলাকারী পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবার দাবি জানান।

বিক্ষোভ সমাবেশে অন্যান্য নেতৃবৃন্দের মধ্যে আরও উপস্থিত ছিলেন বাম জোট নেতা সাজ্জাদ জহির চন্দন, আব্দুল্লাহ ক্বাফি রতন, বহ্নিশিখা জামালী, মানস নন্দি, নজরুল ইসলাম, জুলফিকার আলি, শহীদুল ইসলাম সবুজ, আকবর খান, লুনা নূর প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.