সীতাকুণ্ড বিস্ফোরণ: দমকল কর্মীসহ এ পর্যন্ত নিহত ৩৮

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে একটি কন্টেইনার ডিপোতে অগ্নিকাণ্ড ও বিস্ফোরণের ঘটনায় এখনো পর্যন্ত ৩৮ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। মৃতদের মধ্যে পাঁচজন দমকল কর্মী রয়েছেন।

মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন উদ্ধারকাজে সংশ্লিষ্টরা। সবমিলিয়ে আহত হয়েছেন দমকল কর্মী ও পুলিশ সদস্যসহ তিনশ’র বেশি মানুষ।

এদিকে আগুন এখনও পুরোপুরি নেভানো সম্ভব হয়নি বলে জানা গেছে।

আগুন নেভাতে আশপাশের বিভিন্ন জেলা থেকে দমকল কর্মীরা যোগ দিয়েছেন। সহায়তা করছে সেনাবাহিনী সদস্যরা।

উল্লেখ্য, গতকাল শনিবার রাত ন’টার দিকে সীতাকুণ্ডের একটি বেসরকারি কন্টেইনার ডিপোতে শুরুতে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। এর চল্লিশের মিনিটের মাথায় ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ ঘটে। মালবাহী কন্টেইনারগুলো দুমড়ে মুচড়ে ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে। বিস্ফোরণের সময় দমকল বাহিনীর কর্মীরা আগুন নেভানোর কাজ করছিল।

ডিপোতে আমদানি হয়ে আসা এবং রপ্তানিমুখি প্রচুর মালবাহী কন্টেইনার ছিল। যার মধ্যে রাসায়নিক পদার্থও ছিল। চট্টগ্রাম বন্দরে পৌঁছানোর আগে রপ্তানি পণ্য এবং আমদানি হয়ে আসা মাল খালাস হওয়ার পর ‘ট্রানজিট পয়েন্ট’ হিসাবে কন্টেইনার রাখার জন্য ডিপোটি ব্যবহৃত হয়।

বিস্ফোরণের সময় পাঁচ কিলোমিটারের মতো দূরত্বে কাঁপুনি অনুভূত হয়েছে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছে। বাতাসে ঝাঁঝালো গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছিল। সেখানে আগুন নেভাতে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ২৫টি ইউনিট।

ওদিকে ডিপোটিতে ‘হাইড্রোজেন পার-অক্সাইড’ নামের একটি রাসায়নিকে আগুন লেগেছে বলে নিশ্চিত হয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

যে রাসায়নিক এখন আশপাশের ড্রেনে ছড়িয়ে পড়েছে। রাসায়নিক যেন আশপাশে জলাধার ও সমুদ্রে আরো ছড়িয়ে না পড়ে সে ব্যাপারে কাজ চলছে। বালুর বস্তা দিয়ে ড্রেন আটকে দেয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.