ডেঙ্গু মহামারি; প্রতি ঘন্টায় ৩০ জন হাসপাতালে

বেড়েই চলেছে ডেঙ্গুর প্রকোপ। চলতি মৌসুমের (এপ্রিল-অক্টোবর) তিন মাস বাকি থাকতেই রেকর্ডসংখ্যক মানুষ ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়েছেন। সরকারি হিসাবে শুধু শনিবারই রাজধানীসহ দেশের ছয় বিভাগের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ৬৮৩ জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হয়েছেন। অর্থাৎ প্রতি ঘণ্টায় আক্রান্ত হচ্ছে ৩০ জন। যা অতীতের সব রেকর্ড অতিক্রম করেছে। রোগীর চাপে নাভিশ্বাস উঠেছে হাসপাতাল সংশ্লিষ্টদের।

ঢাকার সাধারণ নাগরিকদের মতোই এডিস মশার আক্রমণে কাতরাচ্ছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) সদস্যরা। রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সের ব্যারাক, মিরপুরসহ আশপাশ এলাকার পুলিশ সদস্যরা ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। প্রতিদিন জ্বর নিয়ে পুলিশ সদস্যরা আসছেন রাজারবাগের কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে। টেস্টে ডেঙ্গু প্রমাণিত হলেই ভর্তি রাখা হচ্ছে হাসপাতালে। ডেঙ্গু আক্রান্ত পুলিশের সংখ্যা হাজার ছাড়িয়েছে।

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ১৮ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ১০ হাজার ৫২৮ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাব মতে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ৬৮৩ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। রোগীর এই চাপ সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে রাজধানীর হাসপাতালগুলো। রোগী নিয়ে এক হাসপাতাল থেকে আরেক হাসপাতালে ছুটতে হচ্ছে নগরবাসীদের। ঢাকা শিশু হাসপাতালেরও একই অবস্থা দেখা যায়। প্রায় ৯০ জন শিশু ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি এখানে।

রাজধানীর বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় সেবা প্রদানকারী চিকিৎসকরাও স্বাস্থ্যঝুঁকিতে রয়েছেন। এই পর্যন্ত ২ জন চিকিৎসক মৃত্যুবরণ করেন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ফিরোজ কবির স্বাধীন নামের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীর মৃত্যু হয়েছে এবং উখিং নু নামে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) এক ছাত্রীর মৃত্যু হয়েছে। কয়েকদিন আগে স্কুল শিক্ষিকা নিগার সুলতানা ঢাকা যান। ঢাকায় গিয়ে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে এলাকায় আসেন তিনি। শুক্রবার গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় তাকে পিরোজপুরের ভান্ডারিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। রোববার দুপুরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

ঢাকার বাইরের চিত্র :

বগুড়া: বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে নতুন করে ডেঙ্গু আক্রান্ত এক রোগী ভর্তি হয়েছেন। এ নিয়ে এখানে চিকিৎসক, মেডিকেল স্টুডেন্ট, শিক্ষকসহ বিভিন্ন পেশার ২৯ জন চিকিৎসাধীন। এরা সবাই ঢাকা থেকে ডেঙ্গুর জীবাণু বহন করে এনেছেন। শনিবার নতুন করে একজন ভর্তি হয়েছেন।

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম নগরীর সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে নতুন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি হওয়ার তথ্য মিলছে। চলতি বছরে গত ৬ মাসে যেখানে ৫ জন রোগী ছিল; সেখানে এখন প্রতিদিনই অন্তত ৬ জন করে রোগী বাড়ছে। সবমিলিয়ে এ পর্যন্ত ৫৪ ডেঙ্গু রোগীর তথ্য নিশ্চিত করে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়।

রংপুর: ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালে ১৩ জন চিকিৎসা নিচ্ছেন। এরা সবাই ঢাকা থেকে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত হয়ে রংপুর ফিরেছেন। মঙ্গলবার থেকে রংপুর মেডিকেল কলেজ (রমেক) হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগে জ্বর আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকে। শনিবার সকালেও তিনজন ভর্তি হয়েছেন। রমেক হাসপাতাল সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

মানিকগঞ্জ: ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতালে ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। শুক্রবার একদিনে এক শিশুসহ ৩ জন ভর্তি হয়েছে। এছাড়া শনিবার সকালেও আরও একজন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছেন। এ নিয়ে মানিকগঞ্জে গত এক সপ্তাহে ১৪ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী ভর্তি হলেন। এ ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগী নিয়ে বেশ বেকায়দায় ও চিন্তিত হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। কারণ হিসেবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, মানিকগঞ্জের সরকারি হাসপাতালগুলোতে রক্ত পরীক্ষার কিট ও রিএজেন্ট না থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন চিকিৎসা নিতে আসা ডেঙ্গু রোগীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.