শ্রমিক ছাঁটাই বন্ধ না করলে পরিণাম অশুভ হবে: টিইউসি

করোনা ভাইরাস জনিত দূর্যোগে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ এ দেশের শ্রমিকশ্রেণী হলেও তাদের ওপর ছাঁটাই, বেতন হ্রাস ও নির্যাতনে যেসব মালিকের হাত কাঁপেনা তারা জাতীয় দুশমন; উল্লেখ করে শ্রমিক ছাঁটাই বন্ধ না করলে পরিণাম অশুভ হবে বলে হুসিয়ারি জানিয়েছে বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিযন কেন্দ্র (টিইউসি)চট্টগ্রাম জেলা কমিটি ।

সোমবার (১৫ জুন) বেলা ১১ টায় চট্টগ্রাম নগরীর জামালখান প্রেস ক্লাব চত্বরে এক দূরবন্ধন-সমাবেশে এসব কথা বলেন টিইউসি’র নেতৃবৃন্দ।

তারা বলেন, এতোবড় দূর্যোগেও সরকারের প্রণোদনা তথা জনগণের টাকা আত্মসাৎ করতে মরিয়া এসব মালিককে চিহ্নিত করে আইনানুগত ব্যবস্থা নেয়া উচিত।

নেতৃবৃন্দ পর্যাপ্ত রেশনিং, সরকারি ত্রাণ ও চিকিৎসা সেবা সংগঠিত, অসংগঠিত প্রতিটি সেক্টরের শ্রমিকদের জন্য সুনিশ্চিত করে প্রয়োজনে দেশব্যাপী কঠোর লকডাউন করে ভাইরাস মোকাবেলায় কার্যকর ও বিজ্ঞানসম্মত ভূমিকা গ্রহণের জোর দাবি জানান।

টিইউসি চট্টগ্রাম জেলা কার্যকরী সভাপতি মৃণাল চৌধুরীর সভাপতিত্বে এই দূরবন্ধন-সমাবেশে গার্মেন্ট শ্রমিকদের জুন মাস থেকে ছাঁটাই শুরুর হুমকী, ট্রেড ইউনিয়ন বন্ধের ষড়যন্ত্র ও বেতন হ্রাসের সিদ্ধান্ত অবিলম্বে রদ এবং করোনা ভাইরাস জনিত দূর্যোগ মোকাবেলায় শ্রমিকসহ গণমানুষের স্বাস্থ্যসেবা ও সুচিকিৎসা নিশ্চিত করার দাবি ব্যক্ত করা হয়।

এতে সংহতি জানান সিপিবি’র কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা কমরেড মোঃ শাহ্ আলম এবং বক্তব্য রাখেন টিইউসি চট্টগ্রাম জেলা সাধারণ সম্পাদক মোঃ মছিউদ্ দৌলা, যুগ্ম সম্পাদক দিলীপ নাথ, সাংগঠনিক সম্পাদক রাহাতউল্লাহ্ জাহিদ, কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ মুছা, নুরুচ্ছাফা ভুঁইয়া, রেল শ্রমিক নেতা সাদেক আহমদ চৌধুরী, গার্মেন্ট শ্রমিক নেতা আতিকুল হক প্রমুখ।