লাইসেন্সের দাবিতে ব্যাটারি রিকশা শ্রমিকদের সংহতি সমাবেশ

ব্যাটারি চালিত রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রকারান্তরে রিকশা চালকদের রুটি-রুজি বন্ধের সিদ্ধান্ত হিসেবে আখ্যায়িত করেছে রিকশা-ভ্যান শ্রমিকরা।

ব্যাটারি চালিত রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত বাতিল করে বুয়েট মডেলে ‘ব্যাটারি রিকশা’ উন্নত করে লাইসেন্স দেয়ার দাবিতে আয়জিত এক সংহতি সমাবেশে শ্রমিকরা এসব কথা বলেন।

আজ (১৮ জুলাই) রবিবার বিকেল সাড়ে ৪টায় রিকশা-ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে ঢাকায় জাতীয় জাদুঘরের সামনে এ সংহতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সংহতি সমাবেশে বক্তারা বলেন, বিদেশী কোম্পানীর দেশী এজেন্টদের কমিশন বাণিজ্যের স্বার্থে দেশীয় প্রযুক্তির ব্যাটারি চালিত রিকশা চালকদের নিঃস্ব করার প্রক্রিয়া চলছে। বক্তারা কয়েক লক্ষ মানুষের রুটি-রুজির একমাত্র অবলম্বন ব্যাটারি রিকশা বন্ধের সিদ্ধান্ত বাতিল এবং বুয়েট প্রস্তাবিত রিকশাবডি, গতি নিয়ন্ত্রক, উন্নত ব্রেকসহ ব্যাটারি চালিত রিকশার আধুনিকায়ন, চালকদের প্রশিক্ষণ ও প্রকৃত চালকদের রিকশা মালিকানার লাইসেন্স প্রদান করে রিকশা রাস্তায় চলতে দেয়ার দাবি জানান।

রিকশা-ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুস-এর সভাপতিত্বে এবং সহ-সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম নাদিম-এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সংহতি সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন, বাম গণতান্ত্রিক জোট-এর সমন্বয়ক বজলুর রশীদ ফিরোজ, গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সভাপতি অ্যাড. মন্টু ঘোষ, বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠীর সাধারণ সম্পাদক জামশেদ আনোয়ার তপন, হাইকোর্টের আইনজীবী আইনুন্নাহার লিপি, শ্রমিকনেতা হযরত আলী, খালেকুজ্জামান লিপন, ছাত্রনেতা রাগীব নাঈম, হকারনেতা আব্দুল হাশেম কবির, বস্তিবাসী নেতা নুরুজ্জামান, রিকশা শ্রমিকনেতা মকবুল হোসেন, মো. ইমরান প্রমুখ।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, করোনা মহামারিতে লাখ লাখ মানুষ তার রুটি-রুজির বন্দোবস্ত করতে হিমশিম খাচ্ছে এর মধ্যে ব্যাটারি রিকশা বাতিলের মাধ্যমে নতুন করে লাখ লাখ মানুষ তার জীবন জীবিকা উপার্জনে বিপদের সম্মুখীন করা হয়েছে। সরকার ব্যবসায়ীদের স্বার্থ দেখতে গিয়ে শ্রমজীবী সাধারণ মানুষের জীবনকে দুর্বিষহ করে তুলছে। শোনা যাচ্ছে, বিদেশ থেকে নতুন ধরনের রিকশা আমদানির প্রস্তুতি সরকার নিচ্ছে এবং এ কারণেই ব্যাটারি চালিত রিকশা চলাচল বাতিল করা হয়েছে।

তারা বলেন, ব্যবসা করার উদ্দেশ্য লাখ লাখ মানুষের জীবনকে বিপন্ন করার যে পদক্ষেপ সরকার নিয়েছে আমরা তা প্রতিহত করব। বাংলাদেশের শ্রমজীবী মানুষের জন্য লড়াই ব্যতীত আর কোনো রাস্তা সরকার খোলা রাখেনি।

বক্তারা আরও বলেন, অবিলম্বে সরকারের এই সিদ্ধান্ত বাতিল করতে হবে, মহাসড়ক ব্যতীত স্থানীয়ভাবে ব্যাটারি রিকশা অবিলম্বে চালু করার নির্দেশ দিতে হবে, বিদেশ থেকে আমদানি নয় বুয়েট এবং এমআইএসটি’র বিকল্প রিকশার যে মডেল সেই মডেল পালন করে রিকশার আধুনিকায়ন ও নিরাপদ করতে হবে, রিকশা চালকদের ওপর পুলিশি জুলুম নির্যাতন বন্ধ করতে হবে।

One thought on “লাইসেন্সের দাবিতে ব্যাটারি রিকশা শ্রমিকদের সংহতি সমাবেশ

  • July 19, 2021 at 11:43 pm
    Permalink

    লাল সালাম কমরেড।
    সম্প্রসারণবাদ এবং
    উপমহাদেশীয় ন্যাটোর
    ভূমিকার নগ্ন বহিঃপ্রকাশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.