রিমান্ড শেষে কারাগারে সাবরিনা

করোনাভাইরাস পরীক্ষা নিয়ে জেকেজি হেলথ কেয়ারের জালিয়াতির মামলায় গোয়েন্দা পুলিশের হেফাজতে দুই দফায় ৫ দিনের রিমান্ড শেষে ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরীকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

সোমবার (২০ জুলাই) সাবরিনাকে ঢাকার মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করা হলে বিচারক আতিকুল ইসলাম জামিন নাকচ করে এই আদেশ দেন।

বেলা ১২টার দিকে সাবরিনাকে ডিবি পুলিশের মিন্টো রোডের কার্যালয় থেকে আদালতে নেওয়া হয়। মামলার তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক লিয়াকত আলী।

অন্যদিকে সাবরিনার পক্ষে সাইফুজ্জামান (তুহিন), ওবায়দুল হাসান বাচ্চু, আবদুস সালামসহ আরও কয়েকজন আইনজীবী জামিন চেয়ে শুনানি করেন। রাষ্ট্রপক্ষে এর বিরোধিতা করেন সহকারী পাবলিক প্রসিকিউটর হেমায়েত উদ্দিন খান হিরন।

এ সময় জেকেজির কমকর্তা হুমায়ুন কবির হিমু ওরফে হিরুকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দ্বিতীয় দফায় ৭ দিনের রিমান্ড চাওয়া হলে বিচারক তা নাকচ করে তাকে কারাফটকে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেন।

১৫ হাজার ৪৬০টি ভুয়া কোভিড রিপোর্ট দেয়ার অভিযোগে গত ২৩শে জুন জেকেজির প্রধান নির্বাহী আরিফুল হক চৌধুরীকে গ্রেফতার করা হয়। এরপর একই অভিযোগে ১২ জুলাই প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ও আরিফের স্ত্রী ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরীকে গ্রেফতার করে পুলিশ।