রাষ্ট্রায়ত্ত পাটকল চালুর দাবিতে আল্টিমেটাম

রাষ্ট্রায়ত্ত সব পাটকল চালু এবং পাটকলের অস্থায়ী ও দৈনিকভিত্তিক শ্রমিকদের বকেয়া পরিশোধের দাবি জানিয়েছেন শ্রমিকরা। এই দাবিতে গত ১৭, ১৮ ও ২০ আগস্ট শ্রমিকরা খুলনা, সিরাজগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন শিল্পাঞ্চলে মানববন্ধন করেছেন। মানববন্ধন থেকে ছয় দফা দাবিও দেওয়া হয়েছে।

খুলনার শ্রমিকদের কর্মসূচির মধ্যে ছিল- ২০ আগস্ট বিকেল ৫টায় খুলনার আফিল জুট মিল মজদুর ইউনিয়নের সামনে শ্রমিক সভা ও বিক্ষোভ মিছিল, ২২ আগস্ট বিকেল ৫টায় সোনালী জুট মিল শ্রমিক ইউনিয়নে শ্রমিক সভা ও বিক্ষোভ মিছিল, ২৪ আগস্ট বিকেল ৫টায় মহসেন জুট মিল সংলগ্ন গাফফার ফুড মোড়ের সামনে শ্রমিক সভা ও বিক্ষোভ মিছিল, ২৬ আগস্ট বিকেল ৫টায় এ্যাজাক্স জুট মিল শ্রমিক ক্লাবে শ্রমিক সভা ও বিক্ষোভ মিছিল।

শ্রমিকদের দাবি না মানা হলে রাজপথ, রেলপথ, অবরোধসহ কঠিন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন খুলনার শ্রমিক নেতারা।

কর্মসূচির অংশ হিসেবে গত ১৭ আগস্ট সকালে খুলনার খালিশপুর জুটমিল ও দৌলতপুর জুটমিল কারখানা কমিটির যৌথ আয়োজনে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। খালিশপুর জুটমিল গেটে এই মানববন্ধন হয়। খালিশপুর জুটমিল কারখানা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলমগীর কবিরের সঞ্চালনায় কর্মসূচির সভাপতিত্ব করেন খালিশপুর জুটমিল কারখানা কমিটির আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান মনির।

মানববন্ধনে রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে বন্ধ হওয়া পাটকলগুলো আবার চালুর পাশাপাশি শ্রমিকদের বকেয়া পাওনা, মজুরি কমিশন অনুযায়ী ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আজহার পূর্ণ বোনাস, পে নোটিশের ৬০ দিনের টাকা ও করোনাকালীন লকডাউনের টাকাসহ যাবতীয় পাওনা পরিশোধের দাবি জানানো হয়।

পাটশিল্পকে বাঁচিয়ে রাখতে হলে রাষ্ট্রের বিশেষ ভূমিকা থাকা দরকার উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, কিছু স্বার্থান্বেষী মহলের কাছে এই খাত ছেড়ে দেওয়া ঠিক হবে না। মিলগুলোর জায়গা লিজ নেওয়ার জন্য বড় বড় রাঘব বোয়ালরা ওত পেতে আছে। তাদেরকে এই জায়গা কোনোভাবেই দেওয়া যাবে না।

এ ছাড়া এখানে আরও বক্তব্য দেন দৌলতপুর জুট মিলের শ্রমিক নেতা নুর মোহাম্মদ, মো. মোফাজ্জেল, খালিশপুর জুট মিলের আবুল কালাম, দুলাল, স্বপন, শ্রমিক-কৃষক-ছাত্র-জনতা ঐক্যের সমন্বয়ক রুহুল আমিন, বাসদ খুলনা জেলা সমন্বয়ক জনার্দন দত্ত নান্টু, সিপিবি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য এস এ রশিদ, গণসংহতি আন্দোলনের খুলনা জেলা সমন্বয়ক মুনীর চৌধুরী সোহেল।

অপরদিকে বেসরকারি পাট, সুতা, বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি শেখ আমজাদ হোসেনের সভাপতিত্বে ও সংগঠনের প্রচার সম্পাদক সাইফুল্লাহ তারেকের পরিচালনায় আরেকটি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

এখানে বক্তব্য দেন বেসরকারি পাট, সুতা, বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ও মহসেন জুট মিল ওয়াকার্স ইউনিয়নের সাবেক সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল খান, শ্রমিক ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, মহসেন জুট মিলের শ্রমিক নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ইঞ্জিল কাজী। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্বারী আসহাফ উদ্দীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহাতাব উদ্দীন, আমির মুন্সী, সাংবাদিক মিহির রঞ্জন বিশ্বাস, অ্যাজাক্স জুট মিলের শ্রমিক নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ওয়াহিদ মুরাদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আজাহার মাদবর, বক্তিয়ার হোসেন, আ. ওহাব, তোফাজ্জেল হোসেন, ওদুদ শরীফ, মো. আবজাল হোসেন, মন্টু চৌধুরী, ইমরান শেখ, সোনালী জুট মিল শ্রমিকনেতা মো. নুরে আলম, সেকেন্দার আলী, লিয়াকত মুন্সী, মো. বাবুল খান, ওবায়দুর রহমান, লুৎফর রহমান, বাবলু, বিল্লাল মোড়ল, আবুল কালাম, আবুল কাশেম, মোকছেদ শেখ, চান মিয়া, আফিল জুট মিলের শ্রমিক নেতা কাবিল উদ্দিন, নিজাম উদ্দিন, মো. এলাহী, মাহাতাব, লুৎফর হোসেন, বক্তিয়ার হোসেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.