‘যে ব্যবস্থা ধর্ষক উৎপন্ন করে সেই ব্যবস্থা বদলানোর সময় এখন’

সারাদেশে একের পর এক ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাষ্কর্যের পাদদেশে প্রতিবাদী সংহতি সমাবেশে করেছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন।

বুধবার (৮ জানুয়ারি)  বিকাল ৩টায় ‘’তোমার খোঁপা খুলে দাও, দ্রৌপদী সময় এখন পাল্টা আঘাতের’’ শিরোনামে ‘পাল্টা আঘাত’ ব্যানারে এই প্রতিবাদী সংহতি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, যে ব্যবস্থা ধর্ষক উৎপন্ন করে সেই ব্যবস্থা বদলানোর সময় এখন ।

সংহতি সমাবেশে বিশিষ্ট প্রাবন্ধিক, বুদ্ধিজীবি সৈয়দ আবুল মকসুদ বলেন, মুখে সরকার যতই আর্থ সামাজিক উন্নয়নের কথা বলুক যতই নিত্য নতুন রাস্তাঘাট হোক, বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্প হোক কিন্তু রাজধানী শহরসহ সমগ্র দেশে যদি এমন বর্বর নারী ধর্ষণের ঘটনা ঘটে তবে তা কোন উন্নয়নকেই মহিমান্বিত করে না।

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে মেহেদী হাসান নোবেল বলেন, নারী ধর্ষণের ঘটনাগুলোতে বিচারহীনতার পরিণতিই আজ ঢাকায় কুর্মিটোলার মত জনাকীর্ণ স্থানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষিত হওয়া। এই রাষ্ট্র ব্যবস্থাই এভাবে ধর্ষক উৎপন্ন করছে। এই ঘটনা প্রমাণ করে উন্নয়নের লোক দেখানো বুলির অন্তরালে রাষ্ট্র আদতে ব্যার্থ। এই রাষ্ট্র নারী তথা জননিরাপত্তা নিশ্চিতে ব্যার্থ তাই এই ব্যবস্থা বদলের সময় এখনই।

ছাত্র ইউনিয়ন নেত্রী অরনী আনজুম এর সঞ্চালনায় এবং বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় সভাপতি মেহেদী হাসান নোবেল এর সভাপতিত্বে সংহতি সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক অনিক রায়, সাবেক সাধারণ সম্পাদক লিটন নন্দী, কৃষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন, বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মুর্শিকুল ইসলাম শিমুল, বাংলাদেশ যুব ইউনিয়নের সভাপতি হাফিজ আদনান রিয়াদ, প্রাবন্ধিক ও বুদ্ধিজীবি সৈয়দ আবুল মকসুদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক কাবেরী গায়েন।

সমাবেশে সংহতি জ্ঞাপন করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সাঈদ ফেরদৌস এবং অধ্যাপক রেহনুমা আহমেদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.