মে মাসে ১০৪ শিশু, ১৩৬ নারী নির্যাতনের শিকার

মে মাসে মোট ২৪০ জন নারী ও কন্যাশিশু নির্যাতনের শিকার হয়েছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ। এর মধ্যে ১০৪ কন্যাশিশু এবং ১৩৬ নারী নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

সম্প্রতি এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সংগঠনটি এ তথ্য জানায়। দেশের ১৩টি দৈনিক পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে এই প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এতে বলা হয়, গত মাসে ধর্ষণের শিকার হয়েছে ৯৫ জন, তার মধ্যে ৪৫ কন্যাশিশু ধর্ষণের শিকার, পাঁচ কন্যাশিশু সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার, তিন কন্যাশিশু ধর্ষণের পর হত্যার শিকার এবং ধর্ষণের কারণে আত্মহত্যা করেছে দুই কন্যাশিশু।

সাত কন্যাশিশুসহ ১২ জনকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছে। একজন শ্লীলতাহানির শিকার হয়েছে। দুই কন্যাশিশুসহ সাতজন যৌন নিপীড়নের শিকার হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, অগ্নিদগ্ধের শিকার হয়েছে একজন। উত্ত্যক্তকরণের শিকার হয়েছে দুজন। সাত কন্যাশিশু অপহরণের ঘটনার শিকার ও তিন কন্যাশিশুকে অপহরণের চেষ্টা করা হয়েছে। বিভিন্ন কারণে ১১ কন্যাশিশুসহ ৪১ জনকে হত্যা করা হয়েছে। এ ছাড়া দুই কন্যাশিশুসহ ছয়জনকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে। এ ছাড়া, যৌতুকের কারণে নির্যাতনের শিকার হয়েছে নয়জন, তার মধ্যে তিনজনকে যৌতুকের কারণে হত্যা করা হয়েছে। শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে দুই কন্যাশিশুসহ মোট ছয়জন। এর বাইরে, আত্মহত্যায় প্ররোচনার শিকার একজন ও আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে একজন। বিভিন্ন নির্যাতনের কারণে আত্মহত্যা করেছে এক কন্যাশিশুসহ পাঁচজন। প্রেমের প্রস্তাব প্রত্যাখানের শিকার দুজন। নয় কন্যাশিশুসহ ৩৬ জনের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বাল্যবিবাহ সংক্রান্ত ঘটনা ঘটেছে তিনটি। জোরপূর্বক বিয়ে ঘটনা ঘটেছে একটি। দুই কন্যাশিশুসহ তিনজন শিকার হয়েছে সাইবার অপরাধের ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.