মুসলিমপ্রধান দেশের যত ভাস্কর্য

দেশের রাজনীতিতে ভাস্কর্য ইস্যুতে বর্তমানে একধরণের উত্তেজনা বিরাজ করছে। অথচ ভাস্কর্য একটি সর্বজনীন সংস্কৃতি। যার মাধ্যমে একটি দেশের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও হাজার বছরের ইতিহাস তুলে ধরা যায়।

বিশ্বের মুসলিমপ্রধান সকল দেশেই নানারকম ভাস্কর্য দেখা যায়। যেসব ভাস্কর্যে ফুটে উঠেছে ইতিহাসের বীরত্বগাথা, মনীষীদের প্রতি শ্রদ্ধা আর নিজ সংস্কৃতির নানা দিক।

একতা টেলিভিশনের আজকের এ বিশেষ আয়োজনে থাকছে সেসব মুসলিমপ্রধান দেশের কথা, যেখানে দাঁড়িয়ে আছে নানান ভাস্কর্য।

ইরান

ইসলামী রাষ্ট্রগুলোর মধ্যে ইরান অন্যতম। পারস্যের ইতিহাসের সূচনা প্রায় এক লাখ বছর আগে থেকে। ইরানে আছে একটি বিশাল স্বাধীনতাস্তম্ভ, যার নাম ‘আজাদি। এ স্থাপত্যটির ডিজাইনার হোসেন আমানত একজন মুসলমান। কবি ফেরদৌসী, ওমর খৈয়াম, পারস্যের নেপোলিয়ন বলে খ্যাত নাদির শাহর মতো খ্যাতিমান ব্যক্তিদের ভাস্কর্য রয়েছে ইরানে। ইরানের ইসলামী বিপ্লবের নেতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনি বা ইমাম খোমেনির একাধিক ভাস্কর্য ও ম্যুরাল রয়েছে ইরানে। এর মাধ্যমে ইতিহাস, ঐতিহ্য ও বিপ্লবের আদর্শ তুলে ধরা হয়েছে।

ইরানে কিংবদন্তি মুসলিম বিজ্ঞানী আবু জাফর মুহাম্মদ ইবনে মুহাম্মদ আদ-দীন-তুসির ভাস্কর্য৷

রাজধানী তেহরানে ঘায়েম মাঘাম ফারাহানির ভাষ্কর্য৷১৮৩৫ সালে মারা গেলেও রাষ্ট্রবিজ্ঞানী, সমাজসংস্কারক ফারাহানিকে এখনো এভাবে জনজীবনের অংশ করে রেখেছে ইরান৷

গত মার্চ মাসে তাবরিজ শহরে তোলা ছবি৷ করোনার বিষয়ে সচেতনতা বাড়াতে ভাস্কর্যের মুখেও পরানো হয়েছে মাস্ক৷

তুরস্ক

ইস্তাম্বুলে সেন্ট আনতুয়ান ক্যাথলিক চার্চের বাইরে পোপ জন পল ২৩-এর ভাষ্কর্য৷

ইস্তাম্বুলে আধুনিক তুরস্কের স্থপতি কামাল আতাতুর্কের ভাস্কর্য৷

লেবানন

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে সে দেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী রফিক হারিরির ভাস্কর্য৷ ২০০৫ সালে এক গাড়িবোমা বিস্ফোরণে তিনি মারা যান৷ ঘটনাস্থলেই প্রয়াত প্রধানমন্ত্রীর ভাস্কর্য৷

বৈরুতে কাঁচ এবং বিভিন্ন ভবনের ধ্বংসাবশেষ দিয়ে তৈরি একটি ভাস্কর্য৷ গত ৪ আগস্ট ভয়াবহ রাসায়নিক বিস্ফোরণে যে ভবনগুলো ধ্বংস হয় সেগুলোর ধ্বংসাবশেষ ব্যবহার করে ভাস্কর্যটি তৈরি করেছেন লেবাননের শিল্পী হায়াত নাজের৷ সরকারবিরোধী আন্দোলনের বর্ষপূর্তি উপলক্ষে এটি তৈরি করেছেন তিনি৷

ইরাক

ইরাকের সুলেমানিয়া শহরের একটি ভাস্কর্য৷ করোনা ভাইরাসের বিষয়ে সবাইকে সতর্ক করতে ভাস্কর্যের মুখেও পরানো হয়েছে মাস্ক৷

আলজেরিয়া

আলজেরিয়ার সেতিফ শহরে আইন-আল-ফাওয়ারার ভাস্কর্য৷

ইন্দোনেশিয়া

ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার ছোটবেলার ভাস্কর্য৷

সৌদি আরব

রাজধানী জেদ্দার উল্লেখযোগ্য ভাস্কর্যের মধ্যে রয়েছে নগরীতে মুষ্টিবদ্ধ হাত, হাংরি হর্স, মানব চোখ, মরুর বুকে উটের ভাস্কর্য।

মালয়েশিয়া

মালয়েশিয়ার সবচেয়ে বিখ্যাত ভাস্কর্য হলো ওয়াশিংটন মনুমেন্টের আদলে গড়া ন্যাশনাল মনুমেন্ট। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে শহীদ হওয়া বীরদের স্মরণে ১৫ মিটারের এই ভাস্কর্যটি উন্মুক্ত করা হয় ১৬৬৩ সালে।  প্রতীকীভাবে সাতজন বীরের প্রতিমূর্তির মাধ্যমে বিশ্বস্ততা, আত্মত্যাগ আর বন্ধুত্বের বিষয়টি এই ভাস্কর্যের মধ্য দিয়ে বোঝানো হয়েছে।

কাতার

কাতারেও দেখা যায় ব্যয়বহুল ও দৃষ্টিনন্দন ভাস্কর্য। কাতারের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ভাস্কর্য হলো ‘হারনেসিং দ্য ওয়ার্ল্ড’, মানে হচ্ছে বিশ্বের সঙ্গে সংযোগ। কাতারের রাজধানী দোহায় কাতার সংস্কৃতি কেন্দ্রে কাতারা আম্পি থিয়েটারের সামনে স্থাপিত হয় পুরো পৃথিবীকে সংযোগ স্থাপন করা নারী প্রতিমূর্তির অবয়বের এই ভাস্কর্য। বিশ্বের নানা প্রান্তের পর্যটকদের জন্য এটি আকর্ষণীয় স্থান।

সংযুক্ত আরব আমিরাত  

সংযুক্ত আরব আমিরাতের উল্লেখযোগ্য ভাস্কর্য হলো : বুর্জ আল খলিফার বিপরীতে সংস্থাপিত আরবীয় যুগলের মূর্তি, দুবাইয়ের ওয়াফি অঞ্চলের প্রবেশপথে পাহারাদারের প্রতিমূর্তি হিসেবে সংস্থাপিত কুকুরের মূর্তি, দুবাইয়ের ইবনে বতুতা মার্কেটে স্থাপিত মূর্তি।

মিশর

পিরামিডের জন্য দুনিয়াজোড়া খ্যাতি মিসরের। বিরাটত্বের দিক থেকে বিখ্যাত হলো জোসার বা স্টেপ (সোপান) পিরামিড ও গিজা পিরামিড। পাথরের তৈরি স্ফিংসের মূর্তিসংবলিত গিজা পিরামিড সারা দুনিয়ার পর্যটকদের অতি প্রিয়। শুধু ইসলাম-পূর্বই নয়, অনেক অনেককাল আগের তথা খ্রিস্টপূর্ব আড়াই হাজার অব্দের এসব মূর্তি মিসরের মুসলমানরা ধ্বংস করেনি। কায়রো বিশ্ববিদ্যালয়ে আছে মাহমুদ মোখতারের বিখ্যাত ভাস্কর্য ইজিপ্ট’স রেনেসাঁ।

পাকিস্তান

পাকিস্তানে রয়েছে ঐতিহাসিক ও রাজনৈতিক ব্যক্তিদের ভাস্কর্য। রয়েছে দৃষ্টিনন্দন ভাস্কর্য শিল্প। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো— স্টক এক্সচেঞ্জ ভবনের সামনে ষাঁড়ের ভাস্কর্য, লাহোরে বাদশাহি মসজিদের পার্শ্বে মেরি মাতার ভাস্কর্য। পাঞ্জাবের জং শহরের রাস্তায় ঐতিহ্যবাহী ঘোড়সওয়ারের ভাস্কর্য। লাহোরে ন্যাশনাল কলেজ অব আর্টস প্রাঙ্গণের নানা ভাস্কর্য। এ ছাড়া,তাজাকিস্থানের রাজধানী দুশানবেতে ইবনে সিনার একটি বিশাল ভাস্কর্য আছে। মুসলিমপ্রধান ওই দেশের কোনো নাগরিক ভাস্কর্য নিয়ে, নেতিবাচক কোন কথা বলেন না।