মামলা-জুলুম করে ভোটাধিকার-গণতন্ত্রের সংগ্রাম থামানো যাবে না

“দেশের মানুষ ভোটাধিকার পুনরুদ্ধার ও গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার জন্য যে লড়াই-সংগ্রাম করছে হামলা-মামলা-গ্রেফতার-নির্যাতন করে তা দমন করা যাবে না”।

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম এক সভায় আজ এসব কথা বলেন।

কমরেড সেলিম আরও বলেন, “যারা মানুষের ভোটাধিকার হরণ করেছে তারাই দেশদ্রোহী। রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা হলে সেটা ক্ষমতাসীনদের বিরুদ্ধেই হওয়া সংগত”।

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র প্রেসিডিয়াম সদস্য কমরেড মিহির ঘোষসহ গাইবান্ধার নেতৃবৃন্দের বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে আজ (১১ জানুয়ারি) মঙ্গলবার, বিকেল সাড়ে ৪টায় ঢাকার পল্টন মোড়ে এক বিক্ষোভ সমাবেশে এসব বক্তব্য প্রদান করা হয়।

সিপিবি সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম-এর সভাপতিত্বে এবং সহকারী সাধারণ সম্পদাক কমরেড সাজ্জাদ জহির চন্দন-এর পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড মোহাম্মদ শাহ আলম, কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক ও ঢাকা দক্ষিণ কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড জলি তালুকদার, কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও ঢাকা উত্তর কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড লুনা নূর এবং কেন্দ্রীয় কমিটির সংগঠক ও ঢাকা জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড আবিদ হোসেন।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, দেশব্যাপী চলমান ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে গাইবান্ধায় সিপিবি প্রার্থীকে ভোট ডাকাতির মাধ্যমে ‘পরাজিত’ করার কাজে নেতৃত্ব দিয়েছেন স্থানীয় সরকার দলীয় সাংসদ। তারা এতেই ক্ষান্ত হয়নি, সিপিবি’র প্রেসিডিয়াম সদস্য মিহির ঘোষ, চেয়্যারম্যান পদপ্রার্থী কৃষক নেতা সাদেকুল ইসলাম মাস্টারসহ ৮জন নেতাকর্মীর নামে হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা দিয়ে জুলুম-নির্যাতন চালাচ্ছে।

সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, অবিলম্বে এসব মামলা প্রত্যাহার এবং হামলা নির্যাতন বন্ধ করা নাহলে সমুচিত জবাব দেয়া হবে।

সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল জিরো পয়েন্ট, পল্টন মোড় ঘুরে মুক্তি ভবনে এসে শেষ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.