“বৈষম্যমুক্ত সমাজ গড়তে বামপন্থিদের ক্ষমতায় আনতে হবে”

বগুড়ায় বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র এক কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সিপিবি, বগুড়া জেলা কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কমরেড জিন্নাতুল ইসলাম জিন্নার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত কর্মীসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সাধারণ সম্পাদক কমরেড রুহিন হোসেন প্রিন্স।

আজ (২৪ জুন ২০২২), শুক্রবার বিকাল ৪টায় বগুড়ার উডবার্ন পাবলিক লাইব্রেরীতে এ কর্মীসভা অনুষ্ঠিত হয়।

কর্মীসভায় সিপিবি’র সাধারণ সম্পাদক কমরেড রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, টাকা পাচার, দুর্নীতি রুখে বৈষম্যমুক্ত সমাজ গড়তে বামপন্থী প্রগতিশীলদের ক্ষমতায় আনতে হবে। এজন্য জনগণের ঐক্য গড়ে তুলে লুটেরা অপশক্তিকে ‘না’ বলতে হবে।

তিনি চলমান দুঃশাসনের অবসান ঘটিয়ে, ব্যবস্থা বদল করতে রাজনীতিতে আওয়ামী-বিএনপি’র দ্বি-দলীয় ধারার বাইরে বাম গণতান্ত্রিক প্রগতিশীল শক্তির বিকল্প শক্তি সমাবেশ গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

কমরেড প্রিন্স বলেন, দেশের কৃষক-ক্ষেতমজুর, দেশ বিদেশের শ্রমজীবী মানুষের আয়ে দেশের যতটুকু অর্থনৈতিক অগ্রগতি হচ্ছে, তার সিংহভাগ লুট করে নিয়ে যাচ্ছে শাসকগোষ্ঠী আর লুটেরারা। এদের ভুলনীতি আর দুর্নীতিতে সাধারণ মানুষ অসহায়। একদিকে কোটিপতি, টাকা পাচারকারীর সংখ্যা বাড়ছে। অন্যদিকে অধিকাংশ মানুষের আয় কমে গেছে, বৈষম্য ও গরিবি বাড়ছে।

তিনি আরও বলেন, ভয়াবহ বন্যায় দেশের সুনামগঞ্জ, সিলেট, নেত্রকোনাসহ দেশের বেশ ক’টি জেলার মানুষ বিধ্বস্ত। অতিবৃষ্টিতে অনেক অঞ্চলে ফসলের ক্ষতি হয়েছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বিদ্যুৎ সংকট চলছে। নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধিতে দিশেহারা সাধারণ মানুষ। শাসকরা যে রঙিন চশমা পরে দেশ চালাচ্ছে, তাদের চোখে এসব ধরা পড়ে না। সব হয়ে যায় ‘উন্নয়ন’।

এই উন্নয়ন জলবায়ু পরিবর্তনে সহায়তা করছে, বন্যার প্রকোপ আর জলাবদ্ধতা বাড়াচ্ছে বলে মন্তব্য করে একে ‘প্রকৃতপক্ষে অপউন্নয়ন’ বলে আখ্যায়িত করেন। তিনি এর বিরুদ্ধে মানুষ ও প্রকৃতি বাঁচাতে জনস্বার্থের উন্নয়নের ধারা রচনা করতে হবে বলে জানান।

কমরেড প্রিন্স বলেন, পদ্মা সেতু চালু করা দেশের মানুষের জন্য দরকার। এর জন্য কালক্ষেপণ করা যাবে না। তবে দেশে বন্যার মধ্যে যে উৎসবের আমেজ ছড়ানো হচ্ছে –তা মানুষ মেনে নেবে না। তিনি সারাদেশে রেশন ব্যবস্থা, ন্যায্য মুল্যের দোকান চালুর দাবি জানান।

বিনে পয়সায় জনগণের যে ভোটাধিকার ছিল তা ছিনতাই হয়ে গেছে বলে মন্তব্য করে তিনি অবিলম্বে সরকারের পদত্যাগ, সংসদ ভেঙ্গে দেওয়া ও নিরপেক্ষ তদারকি সরকারের অধীনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন দাবি করেন।

সংখ্যানুপাতিক পদ্ধতি প্রবর্তনসহ নির্বাচন ব্যবস্থাকে টাকা-পেশিশক্তি-সাম্প্রদায়িক প্রচারণা ও প্রশাসনিক কারসাজি মুক্ত করার দাবিও জানান তিনি। একইসাথে তিনি কৃষকের ফসলের ন্যায্য মূল্য, ক্ষেতমজুর ও শ্রমিকদের কাজের নিশ্চয়তা ও শ্রমিকের জাতীয় মজুরি ন্যূনতম বিশ হাজার টাকা করার দাবি জানান।

কর্মীসভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সদস্য অ্যাড. মহসিন রেজা, বগুড়া জেলা কমিটির সহ-সাধারণ সম্পাদক হরিসংকর সাহা, সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য হাসান আলী শেখ, বগুড়া সদর উপজেলা কমিটির সভাপতি শাহনিয়াজ কবির খান পাপ্পু, শ্রমিক নেতা মতিয়ার রহমান, সিপিবি নারী সেল বগুড়া জেলা কমিটির আহ্বায়ক ফারহানা আক্তার শাপলা, উদীচী বগুড়া জেলা সংসদের সহ-সভাপতি অ্যাড. লুৎফর রহমান, সম্পাদকমন্ডলীর সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সাহা সন্তোষ, এবং সন্তোষ কুমার পাল, যুবনেতা সাজেদুর রহমান ঝিলাম, যুথিরানী দাস, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন বগুড়া জেলা সংসদের সভাপতি সাব্বির হোসেন প্রমুখ নেতৃবৃন্দ। কর্মী সভা পরিচালনা করেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি বগুড়া জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড মোঃ আমিনুল ফরিদ।

কর্মীসভা শেষে “দুঃশাসন হঠাও, ব্যবস্থা বদলাও, বিকল্প গড়ো” শ্লোগানকে সামনে রেখে বিক্ষোভ মিছিল বগুড়ার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.