বাম জোটের প্রচার মিছিলে হামলা ও পুলিশি বাধা

বাম গণতান্ত্রিক জোটের ৩০ ডিসেম্বর ‘কালো দিবস’ এর প্রচার চালানোর সময় তেজগাঁওয়ের নাখালপাড়া রেলগেইট এলাকায় শ্রমিকলীগের হামলা ও পুলিশের বাধা প্রদানের ঘটনা ঘটেছে।

হামলা ও পুলিশি বাধা দানের ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদ।  

আজ (২৫ ডিসেম্বর) শুক্রবার সকালে বাম গণতান্ত্রিক জোটের প্রচার কর্মসূচিতে এ হামলা ও পুলিশি বাধা প্রদানের ঘটনা ঘটে বলে বাম গণতান্ত্রিক জোটের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

এদিকে অপর এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, ঢাকা কমিটির নেতৃবৃন্দও এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়েছেন।

কর্মসূচির প্রচারণা ও গণসংযোগ কার্যক্রম চলাকালে সরকারদলীয় পেটোয়া বাহিনীর হামলায় সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা কমরেড সাদেকুর রহমান শামীমসহ সিপিবি ও বাসদের ১০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন বলেও প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

বিবৃতিতে বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের নেতৃবৃন্দ বলেন, ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর ভোট ডাকাতির দুই বছর পূর্তিতে বাম গনতান্ত্রিক জোট ঘোষিত ৩০ ডিসেম্বর ‘কালো দিবস’ কর্মসূচি সফল করতে ঢাকা মহানগরের বিভিন্ন থানায় প্রচার কার্যক্রমের অংশ হিসেবে আজ সকাল ১১টায় নাবিস্কো মোড় থেকে কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সাদেকুর রহমান শামীম, তেজগাঁও থানা কমিটির নেতা শহীদুল ইসলাম, সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রন্ট সভাপতি আল কাদেরী জয়, সাধারণ সম্পাদক নাসিরউদ্দীন প্রিন্সের নেতৃত্বে নাখালপাড়া রেলগেইট-এ পৌঁছালে স্থানীয় শ্রমিকলীগ কার্যালয় থেকে একদল সন্ত্রাসী ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিয়ে বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা করে লিফলেট কেড়ে নেয় এবং ফেস্টুন ছিঁড়ে ফেলে। হামলা উপেক্ষা করে পুনরায় প্রচার কার্যক্রম চালালে এলাকায় টহলরত পুলিশ দল লিফলেট বিতরণে বাধা প্রদান করে। স্থানীয় জনগণের বিক্ষোভের মুখে তারা সরে গেলে বাম জোটের নেতা-কর্মীরা ‘কালো দিবস’ সফল করতে প্রচারণা চালায়।

প্রচার কাজে সরকার দলের হামলা ও পুলিশের বাধার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বাম জোটের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ বলেন, বাধা দিয়ে, হামলা করে, মামলা দিয়ে অবৈধ সরকার টিকিয়ে রাখা যাবে না। নেতৃবৃন্দ হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবি জানান।

নেতৃবৃন্দ ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর ভোট ডাকাতির মাধ্যমে ক্ষমতাসীন অবৈধ সরকারের অবিলম্বে পদত্যাগ এবং নির্দলীয় নিরপেক্ষ তদারকি সরকারের অধীনে অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি জানান।

তেজগাঁও বাম জোটের কর্মসূচিতে হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে সিপিবি

আজ ২৫ ডিসেম্বর ঢাকা নগর বাম জোটের উদ্যোগে প্রচার কর্মসূচিতে সরকারি দলের নেতাকর্মীরা পুলিশের ছত্রচ্ছায়ায় বাধা প্রদান এবং হামলা চালায়। বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, ঢাকা কমিটির সভাপতি মোসলেহ উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক সাজেদুল হক রুবেল এ হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বরে অনুষ্ঠিত জাতীয় নির্বাচনে রাতের আধারে ব্যালট বাক্স ভরে ভোট চুরির এক জঘন্য দৃষ্টান্ত স্থাপনের মাধ্যমে ক্ষমতায় পুনর্বার অধিষ্ঠিত হয়। সেই প্রেক্ষাপটে, জনগণের ভোটের অধিকার আদায়ের লড়াইয়ের অংশরূপে আগামী ৩০ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অভিমুখে মিছিল অনুষ্ঠিত হবে। সেই কর্মসূচির প্রচারণা ও গণসংযোগ কার্যক্রম চলাকালে সরকারদলীয় পেটোয়া বাহিনী হামলা চালায়। এ হামলায় সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা কমরেড সাদেকুর রহমান শামীমসহ সিপিবি ও বাসদের ১০ জন নেতাকর্মী আহত হন।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে চিহ্নিত হামলাকারীদের গ্রেপ্তার ও বিচার দাবি করেন।