“বানভাসি এলাকায়ও দূর্বৃত্তায়ন ঠেকাতে ও ত্রাণ সরবরাহে সরকার ব্যর্থ”

“বানভাসি এলাকায় নৌকার দাম, যাতায়াত খরচ, দ্রব্যমূল্য সীমাহীন পর্যয়ে পৌঁছেছে। নিয়ন্ত্রণ করার কেউ নেই। এসব বানভাসি এলাকায়ও দূর্বৃত্তায়ন ঠেকাতে ও ত্রাণ সরবরাহে সরকার ব্যর্থ”।

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স দিনাজপুরে সিপিবির এক কর্মীসভায় এসব কথা বলেন।

কর্মীসভায় তিনি বলেন, বানভাসি এলাকায় দূর্বৃত্তায়ন ঠেকাতে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করে ভাড়া বৃদ্ধি, মূল্যবৃদ্ধি ঠেকাতে হবে। বিকল্প যাতায়াত ব্যবস্থা ও খাদ্য সরবরাহের বিকল্প ব্যবস্থা করতে হবে। ঐসব মানুষের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। এসব কাজ করতে সব ধরনের উৎসব বন্ধ রাখতে হবে। মানবতা জাগ্রত করে সারাদেশের মানুষকে বানভাসি মানুষের পাশে দাঁড়াতে উদ্ধৃত করতে হবে।

গতকাল (১৯ জুন), রবিবার সকাল ১১টায় দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে দিনাজপুর জেলা সিপিবি এ কর্মীসভার আয়জন করে।

সিপিবি দিনাজপুর জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট মেহেরুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রবীন জননেতা মোহাম্মদ আলতাফ হোসাইন, সিপিবি কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য আশরাফুল আলম, সিপিবি জেলা সাধারণ সম্পাদক ইকবাল সিদ্দিকী, সিপিবি সদর সাধারণ সম্পাদক অমৃত রায়, সেতাবগঞ্জ সিপিবি নেতা আব্দুস সামাদ, আজিজুল হক, ফুলবাড়ী সিপিবি নেতা মোসলেম উদ্দিন, কাহারোল উপজেলা সভাপতি জগেশ চন্দ্র রায়, সম্পাদক কামরুজ্জামান, পাবর্তীপুর সম্পাদক তহমিদার রহমান তারি, খানসামা উপজেলা সভাপতি মোহাম্মদ শওকত আলীসহ নেতৃবৃন্দ। সভাটি পরিচালনা করেন ফুলবাড়ী আন্দোলনের নেতা এস এম নুরুজ্জামান।

সভায় রুহিন প্রিন্স আরও বলেন, পরিবেশ প্রতিবেশ রক্ষা না করে ‘উন্নয়ন যন্ত্রণায়’ ভূগছে বাংলাদেশ ও দেশের সাধারণ মানুষ । সুনামগঞ্জ, সিলেট, নেত্রকোনাসহ দেশের বিভিন্ন জেলার মানুষ আজ যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, অসহায় হয়ে আছে। আর এই ‘উন্নয়নে’র তথাকথিত সুফলের বড় অংশ বিদেশে পাচার হয়ে যাচ্ছে।

এই দূর্বৃত্তদের অর্থের জোগান দিতে গরিবের ১০ কেজি চালের দাম বাড়িয়ে ১৫ টাকা করা হয়েছে। এই দরিদ্রের জন্য বরাদ্দের চাল প্রকৃত গরিবেরা পায় না। পায় দলীয় টাকাওয়ালা মানুষ ।

সাধারণ মানুষ দ্রব্যমূল্যে অতিষ্ঠ, ভোটাধিকার নেই, সব জায়গায় ভয়ের রাজত্ব কায়েম করা হয়েছে।

প্রিন্স বলেন, গ্রাম আর গ্রামের উৎপাদন দেশকে অগ্রসর করে নিয়ে এসেছে। অথচ এই গ্রাম, গ্রামের মানুষের উন্নয়নে শাসকদের নজর নেই। প্রচলিত ব্যবস্থা বজায় রেখে এসব সংকটের সমাধান হবে না। এজন্য ব্যবস্থা বদলাতে হবে। একটি শক্তিশালী কমিউনিস্ট পার্টি পারবে ব্যবস্থা বদল করে নতুন সমাজ গড়ে তুলতে। এজন্য গ্রামে গঞ্জে সংগঠন গড়ে তুলতে হবে।

তিনি বলেন, জনগণের ঐক্য পারবে চলমান দুঃশাসনের অবসান ঘটিয়ে ব্যবস্থা বদল করতে। এজন্য নীতিনিষ্ঠ রাজনৈতিক দল সিপিবিকে সাধারণ মানুষের কাছে যেয়ে তাদের সচেতন ও সংগঠিত করে দৃঢ়তার সঙ্গে এগিয়ে যেতে হবে। বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষকে গণ-আন্দোলন গণ-সংগ্রামের ধারায় আনতে হবে।

তিনি সারা দেশে রেশন ব্যবস্থা ও ন্যয্যমূল্যের দোকান চালু, রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে নিত্যপণ্যের মজুদ গড়ে তোলা এবং ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান।

এসময় রুহিন হোসেন প্রিন্স উপস্থিত পার্টি নেতা-কর্মীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.