বাংলাদেশে করোনার আরেকটি নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসের আরেকটি নতুন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়েছে বলে দাবি করেছেন দেশের বিজ্ঞানীরা। এই ভ্যারিয়েন্টটির নাম বি.১.৫২৫।

গ্লোবাল ইনিশিয়েটিভ অন শেয়ারিং অল ইনফ্লুয়েঞ্জা ডাটার (জিআইএসএআইডি) তথ্য অনুসারে, এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের একাধিক গবেষণাগারে এই ভ্যারিয়েন্টের আটটি নমুনা পাওয়া গেছে।

এর মধ্যে ছয়টি শনাক্ত করেছেন বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণা পরিষদের বিজ্ঞানীরা। বাকি দুটির একটি ইনস্টিটিউট ফর ডেভেলপিং সায়েন্স অ্যান্ড হেলথ ইনিশিয়েটিভের এবং একটি শিশু স্বাস্থ্য গবেষণা ফাউন্ডেশনের বিজ্ঞানীরা শনাক্ত করেছেন।

ডাটাবেজের তথ্য অনুসারে, যেসব নমুনায় এটি শনাক্ত হয়েছে, সেগুলো ১১ মার্চ থেকে ১৩ এপ্রিলের মধ্যে সংগ্রহ করা হয়েছে। যে রোগীদের নমুনায় এই ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে, তাদের মধ্যে একজন সুনামগঞ্জের। বাকি সবাই ঢাকার বিভিন্ন এলাকার। তাদের বয়স ২৩ থেকে ৫৮ বছরের মধ্যে।

বলা হচ্ছে, বি.১.৫২৫ ভ্যারিয়েন্টটি গত বছরের ১৫ ডিসেম্বর যুক্তরাজ্যে প্রথমবারের মতো শনাক্ত হয়। একই মাসে নাইজেরিয়াতেও পাওয়া যায় ভ্যারিয়েন্টটি।

এর আগে, বাংলাদেশে বি.১.৩৫১ বা ৫০১.ভি২ নামে পরিচিত দক্ষিণ আফ্রিকার ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়। এ ছাড়াও, গত জানুয়ারিতে বি.১.১.৭ হিসেবে পরিচিত যুক্তরাজ্যের আরেকটি ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়।

বি.১.৫২৫ নামের নতুন ভ্যারিয়েন্টটি এখন পর্যন্ত ডেনমার্ক, যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়াসহ ২৪টি দেশে পাওয়া গেছে। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, এটিরও বেশ কয়েকটি মিউটেশন হয়েছে। এর মধ্যে একটির নাম ই৪৮৪কে।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। আর প্রথম মৃত্যু ঘটে ওই বছরের ১৮ মার্চ।

এখন পর্যন্ত দেশে মোট সাত লাখ ৩৬ হাজার ৭৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। তাদের মধ্যে ছয় লাখ ৪২ হাজার ৪৪৯ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন। সুস্থতার হার ৮৭ দশমিক ২৮ শতাংশ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.