বাংলাদেশেও ‘ওমিক্রন’ শনাক্ত

বাংলাদেশে করোবাভাইরাসের ‘ওমিক্রন’ ভ্যারিয়েন্ট শনাক্ত হয়েছে।

জিম্বাবুয়ে সফর করে আসা বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলের দুই সদস্যের দেহে করোনাভাইরাসের অমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট ধরা পড়েছে।

বাংলাদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালিক এটি নিশ্চিত করেছেন।

আক্রান্ত দুই ক্রিকেটারই এখন সুস্থ আছেন তবে তাদের কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর আনুষ্ঠানিক ঘোষণার মাধ্যমে বাংলাদেশে এই প্রথম ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্ট শনাক্তের খবর পাওয়া গেল। এ ভ্যারিয়েন্টটি প্রথম শনাক্ত হয়েছিলো দক্ষিণ আফ্রিকায়।

এ পর্যন্ত ৬২টি দেশে এটি ছড়িয়েছে ওমিক্রন যাকে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের চেয়ে বেশি সংক্রামক বলা হলেও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে এর উপসর্গও প্রায় একই রকম।

প্রসঙ্গত, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ডাব্লিউএইচও নতুন এই ভ্যারিয়েন্টের নাম দিয়েছে ‘ওমিক্রন’। গ্রিক বর্ণমালার আলফা, ডেল্টার মতোই নতুন এই ভ্যারিয়েন্টের কোড-নেম ঠিক করা হয়েছে।

এই ভ্যারিয়েন্টটি মিউটেট বা তার রূপ পরিবর্তন করেছে অনেকভাবে। দক্ষিণ আফ্রিকার সেন্টার ফর এপিডেমিক রেসপন্স অ্যান্ড ইনোভেশনের পরিচালক অধ্যাপক টুলিও ডি অলিভিয়েরা বলছেন, এই ভ্যারিয়েন্টটি “অনেক অস্বাভাবিকভাবে মিউটেট” করেছে এবং এখন পর্যন্ত অন্য যেসব ভ্যারিয়েন্ট ছড়িয়েছে তার চেয়ে এটি “অনেকখানিই আলাদা।”

সর্বশেষ ‌এই ভ্যারিয়েন্টটি কোভিড জীবাণুর সবচেয়ে বেশি মিউটেট হওয়া সংস্করণ।

এর মিউেটশনের তালিকা এত দীর্ঘ যে একজন বিজ্ঞানী একে ‘ভয়াবহ’ বলে বর্ণনা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.