বন্যা দূর্গতদের প্রয়োজনীয় ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসন দাবি

সিলেটে সিপিবির সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স

সিলেট শহর থেকে ৩২ কিলোমিটার দূরে চারখাই, বিয়ানীবাজার এলাকায় বন্যার্ত এলাকায় গিয়ে ত্রাণ বিতরণকালে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেছেন, “রাস্তায় পানি, অনেক বাড়ি এখনো ভাসছে। মানুষের কাজ নেই। অসহায় মানুষ নির্বিকার হয়ে আছে পুরো পথে মানুষের পারাপারসহ খাদ্য, অর্থ, চিকিৎসা সহায়তার জন্য কোন সরকারি তৎপরতা দেখা গেল না”।

আজ (২৭ জুন) সকাল ১১ টায় সিলেটের বিয়ানীবাজারের চারখাই এলাকায় বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের বন্যার্ত মানুষের মাঝে ত্রাণ বিতরণ ও বন্যা কবলিত বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শনের সময় উপস্থিত জনসাধারণ ও সংবাদ কর্মীদের সামনে রুহিন হোসেন প্রিন্স এসব কথা বলেন।

বন্যা দূর্গতদের বাড়ি বাড়ি যেয়ে প্রয়োজনীয় খাদ্য, অর্থ, চিকিৎসা সহায়তা প্রদান এবং ক্ষতির তথ্য সংগ্রহের আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, প্রয়োজনীয় মানুষদের ক্ষতিপূরণ ও পুনর্বাসন এর সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা নেওয়া এবং বাস্তবায়ন করতে হবে।

কমরেড প্রিন্স আরও বলেন, চলতি উন্নয়ন ধারা অব্যাহত থাকলে এসব সংকট থেকে মুক্তি মিলবে না। এজন্য উন্নয়ন এর ভুল পথ পরিত্যাগ করতে হবে। বৈশ্বিক উষ্ণতা কমাতে বিশ্ব দরবারে ভূমিকা রাখতে হবে। নদীর উপর অত্যাচার বন্ধ করে, স্বাভাবিক প্রবাহ অব্যাহত রাখতে আন্তঃমহাদেশীয় ও দেশের নদী সমস্য সমাধানে দৃঢ় ভূমিকা নিতে হবে। নদী হাওড় এর স্বাভাবিক ধারা অব্যাহত রেখে যাতায়ত ব্যবস্থা গড়ে তুলতে হবে।এসব কাজে স্থানীয় মানুষকে সম্পৃক্ত করতে হবে।

তিনি পরিবেশ প্রতিবেশ রক্ষায় সকলকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানান।

বাম জোটের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদের মধ্যে ছিলেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, বাসদ কেন্দ্রীয় সহকারী সাধারণ সম্পাদক রাজেকুজ্জামান রতন, ইউসিএলবির কেন্দ্রীয় সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য নজরুল ইসলাম, বাসদ (মার্কসবাদী)’র কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক মাসুদ রানা, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য শহিদুল ইসলাম সবুজ, ওয়ার্কার্স পার্টির (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় সদস্য বিধান দাস।

Leave a Reply

Your email address will not be published.