বগুড়ায় সিপিবির সদর উপজেলা সম্মেলন অনুষ্ঠিত

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, বগুড়া সদর উপজেলা কমিটির ১৭তম সম্মেলন ২৫ ডিসেম্বর সকাল ১১ টায় সাতমাথায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কাউন্সিল অধিবেশনে কমরেড শাহনিয়াজ কবির খান পাপ্পুকে সভাপতি ও কমরেড অখিল পালকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করা হয়।

উল্লেখ্য, সিপিবির দ্বাদশ কংগ্রেসকে সামনে রেখে সারাদেশে শাখা সম্মেলন সমাপ্ত হবার পর থানা-উপজেলা সম্মেলন চলছে। এরই ধারাবাহিকতায় ২৫ ডিসেম্বর বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, বগুড়া সদর উপজেলা কমিটির ১৭তম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

জাতীয় সঙ্গিত ও বেলুন উড়িয়ে শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় কমিটির সংগঠক প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা কমরেড আসলাম খান। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পূর্বে গনসংগীত পরিবেশন করেন বাংলাদেশ উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী বগুড়া জেলা সংসদের শিল্পীবৃন্দ।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানের পর এক সমাবেশ সদর উপজেলা কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কমরেড সন্তোষ কুমার পালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি কেন্দ্রীয় কমিটির অন্যতম সংগঠক কমরেড আসলাম খান, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি বগুড়া জেলা কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কমরেড জিন্নাতুল ইসলাম জিন্না, সাধারণ সম্পাদক কমরেড আমিনুল ফরিদ, সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক কমরেড সাজেদুর রহমান ঝিলাম। সভা সঞ্চালনা করেন সদর উপজেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক কমরেড শাহনিয়াজ কবির খান পাপ্পু।

নেতৃবৃন্দ বলেন দেশ এক গভীর সংকটের মধ্যে দিয়ে অগ্রসর হচ্ছে, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ভুলুন্ঠিত। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বিপরীতে এবং উল্টোপথে দেশ পরিচালিত হচ্ছে। ঘুষ, দুর্নীতি, হত্যা, দখলদরিত্ব লুটপাট, টেন্ডারবাজী, নারী নিপিড়ন, বেড়েই চলেছে। দেশে লুটপাটের মহৎসব চলছে।শোষণ, লুটপাট দুর্নীতি করে অসৎ নেতারা এবং অসৎ আমলারা টাকার পাহাড় গড়ে তুলেছে, রাজনীতি আর রাজনীতি বিদদের হাতে নেই রাজনীতি জিম্মি হয়ে পরেছে অসৎ রাজনীতিবিদ, অসৎ আমলা এবং অসৎ শিল্পপতিদের কাছে। শাসক গোষ্ঠী ধনী এবং লুটেরাদের স্বার্থ রক্ষা করে তাই গরীব মেহনতী মানুষ আজ উপেক্ষিত। কমিউনিস্ট পার্টি গরীব মেহনতী মানুষের পার্টি গরীব মেহনতী মানুষের স্বার্থে লড়াই করে, সংগ্রাম করে। গরীব মেহনতী মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে লুটেরাদের সমসব্যাবস্থার কবর রচনা করতে হবে, সমাজতন্ত্র- সাম্যবাদ প্রতিষ্ঠা ছাড়া গরীব মেহনতী মানুষের মুক্তিনেই।

নেতৃবৃন্দ উপস্থিত জনতাকে কমিউনিস্ট পার্টির পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হবার আহ্বান জানান।

সমাবেশ শেষে একটি বর্ণ্যাঢ্য রেলি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.