পুরান ঢাকায় ফুটপাতে বসার ঘোষণা উচ্ছেদকৃত হকারদের

পুনর্বাসন ছাড়া হকার উচ্ছেদ বন্ধ, হকার ব্যবস্থাপনার জাতীয় নীতিমালা প্রণয়ন এবং হকারদের ওপর দমন-পীড়ন-নির্যাতন, হামলা-মামলার প্রতিবাদে গত দুই মাস ধরে আন্দোলনরত পুরান ঢাকার হকাররা ঘোষণা দিয়েছে সোমবার থেকে আবার ফুটপাতে বসবে তারা।

রোববার (১৩ অক্টোবর) সকাল ১১টায় সদরঘাট ভিআইপি গেটের সামনে বিক্ষোভ-সমাবেশ করে বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়ন।

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সাবেক সভাপতি শ্রমিকনেতা মনজুরুল আহসান খান বলেন, হকারদের দীর্ঘদিনের ধারাবাহিক আন্দোলনের কারণে প্রধানমন্ত্রী তাদেরকে বসার নির্দেশনা দিয়েছেন কিন্তু প্রশাসন প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা না মেনে হকার উচ্ছেদ, দমন-পীড়ন-মামলা-হামলা- নির্যাতন করছে।

এসব প্রশাসনের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অমান্য করার জন্য ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে আহ্বান জানান তিনি।

তিনি আরো বলেন, পাকিস্তান আমল থেকে আজ পর্যন্ত হকার উচ্ছেদ করে কোনো সরকার টিকতে পারে নাই। আজ যদি হকার উচ্ছেদ করা হয় তাহলে এ সরকারও টিকতে পারবে না।

বাংলাদেশ হকার্স ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুল হাশিম কবিরের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন হকার্স ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সেকেন্দার হায়াৎ, গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক জলি তালুকদার, সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জসিমউদ্দিন, কেন্দ্রীয় নেতা জহিরুল ইসলাম, কোতয়ালী থানার সভাপতি আব্দুল কাইয়ূম, সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান পাটোয়ারি, সূত্রাপুর থানার সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ আলী প্রমুখ।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা অনুযায়ী ঢাকা মহানগরে সকল জায়গায় হকার আছে পুরান ঢাকায়ও হকার থাকবে। আগামীকাল থেকে হকাররা নির্দেশনা অনুযায়ী বসবে প্রশাসন বাধা দিলে সম্মিলিতভাবে প্রতিরোধ করতে হবে।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, হকার বসা নিয়ে কোন অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটলে তার দায়-দায়িত্ব প্রশাসনকে নিতে হবে। কারণ হকাররা নিজের কর্মসংস্থান নিজেই সৃষ্টি করেছে তারা কাজ করে খেতে চায়, পরিবার-পরিজন নিয়ে বাঁচতে চায়। বাঁচার অধিকারে আঘাত করলে তার পরিণাম ভয়াবহ হবে।

সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল সদরঘাট থেকে শুরু হয়ে কোতয়ালী থানা-ভিক্টোরিয়া পার্ক-ওয়াইজ ঘাট হয়ে ৪৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের কার্যালয়ের সামনে শেষ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.