পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে বাম জোট

রংপুরের পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণের জন্য বাম গণতান্ত্রিক জোটের কেন্দ্রীয় একটি টিম সেখানে গেছে।

বাম নেতৃবৃন্দ হামলায় ক্ষতিগ্রস্থদের বাড়ী ঘর, মন্দির, দোকানপাট ঘুরে ঘুরে দেখেন। তারা ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের সদস্য, এলাকার জনপ্রতিনিধিদের সাথে মতবিনিময় করেন। এসময় নেতৃবৃন্দ হিন্দু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা, ক্ষতিগ্রস্থদের ক্ষতিপূরণ এবং দায়ীদের শাস্তি দাবি জানিয়েছেন।

বাম গণতান্ত্রিক জোটের এই কেন্দ্রীয় টিমে ছিলেন সিপিবির কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, বাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য রাজেকুজ্জামান রতন, কমিউনিস্ট লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন নান্নু, আনসার আলী দুলাল, আনোয়ার হোসেন বাবলু, শাহীন রহমান, আব্দুল কুদ্দুস, রেবতি বর্মন, অ্যাড. কাজী লুলুম্বা, আ্যড আবু সুফিয়ান, কামরুজ্জামান, মোখলেসুর রহমান প্রমুখ।

গতকাল (২২ অক্টোবর) শুক্রবার এই টিম রংপুরের পীরগঞ্জে সাম্প্রদায়িক হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শনে যান।

ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় অবস্থানকালে নেতৃবৃন্দ বলেন, যে ঘটনাকে অজুহাত করে এই হামলা পরিচালিত হয়েছে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী ও প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষ সতর্ক এবং উদ্যোগী হলে এটা নিয়ন্ত্রণ করা যেত।

এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে নেতৃবৃন্দ বলেন, হামলাকারী এবং উস্কানীদাতাদের চিহ্নিত করা কোন কঠিন কাজ নয়। অতীতের মত এবারও যেন সাম্প্রদায়িক হামলাকারীরা পার পেয়ে না যায় সে ব্যাপারে প্রশাসনকে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান।

সাম্প্রদায়িক বাতাবরণ তৈরি করা, হামলাকারীদের প্রশ্রয় দেয়া ও ক্ষতিগ্রস্থদের সান্তনা দেয়ার সরকারী নীতির সমালোচনা করে নেতৃবৃন্দ বলেন, অতীতের রামু, সাথিয়া, গোবিন্দগঞ্জ, নাসিরনগর, সুনামগঞ্জসহ বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার জন্য দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি হলে এই ধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনার পুনরাবৃত্তি রোধ করা সম্ভব হতো। কুমিল্লার ঘটনাকে অজুহাত করে এবার দেশের বিভিন্ন স্থানে যে হামলা ভাংচুর, হত্যাকা- সংঘটিত হয়েছে তার দায় সরকার এড়াতে পারে না।

নেতৃবৃন্দ ধর্মীয় উন্মাদনা সৃষ্টিকারী বক্তব্য প্রদানকারী, হামলার ইন্ধনদাতা এবং হামলাকারীদের শাস্তি দাবি করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.