জ্বালানির দাম পরিবর্তন আইন প্রত্যাহারের দাবি বাম জোটের

অনশনরত পাটকল শ্রমিকদের দাবি মেনে নেয়া এবং বছরে একাধিকবার জ্বালানির দাম পরিবর্তন করার গণবিরোধী আইন সংশোধনী প্রত্যাহার করার জন্য দাবি জানিয়েছে বাম গণতান্ত্রিক জোট।

বুধবার (১ জানুয়ারি) সংবাদ মাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে এই দাবি জানান বাম গণতান্ত্রিক জোটের নেতৃবৃন্দ।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকার পাটকল শ্রমিকদের সাথে বারবার প্রতিশ্রুতি দিয়ে তা রক্ষা না করে প্রতারণা করছে। পাটকল শ্রমিকরা তাদের ন্যায়সঙ্গত দাবি নিয়ে অনশন করছে। এর আগে অনশনে দুইজন অনশনরত শ্রমিক জীবন দিয়েছে। সরকার প্রতিশ্রুতিতে আন্দোলনরত শ্রমিকরা অনশন ভাঙলেও গত দুই সপ্তাহ তাদের দাবি পূরন না হওয়ায় শ্রমিকরা পুনরায় অনশন করছে।

নেতৃবৃন্দ শ্রমিকদের সাথে সরকারের প্রতারণার তীব্র নিন্দা জানিয়ে পাটকল শ্রমিকদের ১১ দফা দাবি মেনে নেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান। তারা পাট শিল্পে ২০১৫ সালের ঘোষিত মজুরি কমিশন বাস্তবায়ন ও শ্রমিকদের বকেয়া মজুরি পরিশোধের দাবি জানান।

অপর এক বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ জ্বালানির দাম বছরে একাধিকবার পরিবর্তন করা যাবে এমন বিধান রেখে ‘বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (সংশোধন) আইন-এর খসড়া মন্ত্রিসভায় অনুমোদন করায় তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করে অবিলম্বে জনস্বার্থবিরোধী এ সংশোধনী প্রত্যাহার করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

নেতৃবৃন্দ এ সংশোধনীকে নববর্ষে জনগণের প্রতি নিষ্ঠুর তামাশা বলে আখ্যায়িত করেন। তারা জ্বালানি খাতে দুর্নীতি ও ভুলনীতির অবসান ঘটিয়ে জনগণকে সাশ্রয়ী মূল্যে বিদ্যুতসহ অন্যান্যা জ্বালানি সরবরাহের জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

নেতৃবৃন্দ সরকারের এই গণবিরোধী নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলনের শামিল হওয়ার জন্য জনগণের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানান।

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক আবদুল্লাহ ক্বাফী রতন, সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, বাসদ সাধারণ সম্পাদক খালেকুজ্জামান, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, বাসদ (মার্কসবাদী) সাধারণ সম্পাদক মোবিনুল হায়দার চৌধুরী, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকী, ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন নান্নু, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু ও সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের আহ্বায়ক হামিদুল হক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.