পাকিস্তানে দুই ট্রেনের সংঘর্ষ; নিহত অন্তত ৩৬

পাকিস্তানের দক্ষিণাঞ্চলে দুই ট্রেনের মধ্যকার মুখোমুখি সংঘর্ষে অন্তত ৩৬ জন নিহত হয়েছে এবং আহত হয়েছে কয়েক ডজন মানুষ।

আরও বহু যাত্রী ধ্বংসাবশেষের মধ্যে আটকা পড়ে আছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আজ (০৭ জুন) সোমবার বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে এসব তথ্য প্রদান করা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সিন্ধু প্রদেশের একটি ট্রেন লাইনচ্যুত হয়ে অন্য একটি ট্র্যাকে চলে আসে। সেই রেলের সাথে তখন যাত্রী বোঝাই আরেকটি ট্রেনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের হিসেব অনুযায়ী, পাকিস্তানে ২০১৩ থেকে ২০১৯ সালের মধ্যে বেশ কিছু রেল দুর্ঘটনায় অন্তত ১৫০ মানুষ নিহত হয়েছে।

যাতায়াতের মাধ্যম হিসেবে রেল পাকিস্তানে খুবই জনপ্রিয়। এই দুর্ঘটনা কী কারণে ঘটেছে তা এখনও পরিষ্কার না। তবে অরক্ষিত লেভেল ক্রসিংয়েও প্রায় যাত্রী-বোঝাই ট্রেনে দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানা যায়।

এর আগে গত ২১ জুলাই পাঞ্জাব প্রদেশের শেখুপুরায় করাচী থেকে লাহোর-গামী এক ট্রেন শিখ তীর্থযাত্রী বহনকারী একটি ভ্যানকে ধাক্কা দিলে ২১ ব্যক্তি প্রাণ হারান।

২০১৯ সালের অক্টোবরে করাচী থেকে রাওয়ালপিন্ডি-গামী ট্রেনের একটি গ্যাস সিলিন্ডার ফেটে আগুন ধরে গেলে ৭০ জন যাত্রী মারা যান।

পাকিস্তানের রেল বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, ২০১২ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে সে দেশে মোট ৭৫৭টি রেল দুর্ঘটনা ঘটেছে। অর্থাৎ, গড়ে প্রতিবছর ১২৫টি দুর্ঘটনা হয়েছে।

এদিকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, এই ঘটনায় তিনি হতবাক। কীভাবে এই দুর্ঘটনা ঘটলো সে সম্পর্কে তিনি পূর্ণাঙ্গ তদন্তের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.