নড়াইলে দুই পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ৩, আহত ১৫

নড়াইলে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু’পক্ষের সংঘর্ষে চাচা-ভাতিজাসহ ৩ জন নিহত ও অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের নড়াইল লোহাগড়ার বিভিন্ন স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার (১০ জুন) বেলা ৩টার দিকে এ সংঘর্ষে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন-চাচা মুক্তার মোল্যা (৬০) ও ভাতিজা আমিনুর রহমান হাবিব (৫৫) এবং রফিকুল ইসলাম (৩০)। নিহতের বাড়ি নড়াইলের গন্ডব গ্রামে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানান, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে লোহাগড়া উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের গন্ডব গ্রামের সাবেক মেম্বার মিরাজ মোল্যা এবং জেলা পরিষদ সদস্য সুলতান মাহমুদ বিপ্লব পক্ষের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব-সংঘাত চলে আসছিল। এরই ধারাবাহিকতায় দু’পক্ষের লোকজন প্রায়ই দ্বন্দ্ব-সংঘাতে জড়িয়ে থাকতো।

আজ দুপুরে মিরাজ মোল্যা পক্ষের খালিদ নামের একজন বাজারে যাওয়ার পথে গন্ডব গ্রামের বটতলায় তাকে হাতুড়িপেটাসহ মারধর করে প্রতিপক্ষ বিপ্লব পক্ষের লোকজন। মিরাজ মোল্যা পক্ষের লোকজন এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে প্রতিপক্ষ বিপ্লব পক্ষের লোকজন মিরাজ মোল্যার লোকজনের ওপর ধারালো অস্ত্র ও লাঠিসহ হামলা চালায়।

এ হামলায় চাচা মুক্তার মোল্যা, ভাতিজা আমিনুর রহমান ও রফিকুল ইসলামসহ মিরাজ মোল্যা পক্ষের অন্তত ১৫ জন আহত হন।

আহতদের নড়াইল সদর হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক চাচা মুক্তার মোল্যা ও ভাতিজা আমিনুর রহমান হাবিবকে মৃত ঘোষণা করেন। এছাড়া গুরুতর আহত রফিকুলকে যশোর নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

লোহাগড়া থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান তিনজন নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এলাকায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।