নারী ‘ইউএনও’দের বাদ দেয়ার প্রস্তাব ধৃষ্টতাপূর্ণ, নারীবিদ্বেষী- সিপিবি

নারী ইউএনওদের বাদ দেয়ার সংসদীয় কমিটির প্রস্তাব ধৃষ্টতাপূর্ণ, নারীবিদ্বেষী এবং তা আমাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও সংবিধানের পরিপন্থী।

আজ এক বিবৃতিতে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক কমরেড মোহাম্মদ শাহ আলম এসব কথা বলেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধাদের মৃত্যুর পর রাষ্ট্রীয়ভাবে ‘গার্ড অব অনার’ দেয়ার ক্ষেত্রে নারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের (ইউএনও) বাদ দিয়ে বিকল্প খুঁজতে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি যে প্রস্তাব দিয়েছে, সেই প্রস্তাবের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, সংসদীয় কমিটির এই প্রস্তাব নারীর ক্ষমতায়ন ও অগ্রযাত্রার বিরোধী। সমাজে নারীকে অধস্তন করে রাখার পশ্চাদপদ দৃষ্টিভঙ্গিকেই তুলে ধরেছে এই প্রস্তাব। নারীর প্রতি চরম অবমাননাকর এধরনের প্রস্তাব সাম্প্রদায়িক-মৌলবাদী ধারায় দেশকে নিমজ্জিত করার ধারাবাহিক প্রক্রিয়ার অংশ মাত্র।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, গণতান্ত্রিক চেতনা ও গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে পদদলিত করে সরকার মৌলবাদী ধ্যান-ধারণায় দেশ পরিচালনা করছে। বিভিন্ন সময় নারীর অধিকারের বিপরীতে সরকার অবস্থান নিয়েছে। সরকার ‘নারী উন্নয়ন নীতিমালা-২০১০’ থেকে সরে এসেছে। পাঠ্যপুস্তকে পরির্বতনসহ বিভিন্ন পরিকল্পনায় নারীকে পশ্চাদপদ করার নানা মৌলবাদী কর্মসূচি গ্রহণ করেছে সরকার।

বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, নারীর প্রতি অবমাননাকর যেকোনো পদক্ষেপে ও সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে সিপিবি সব সময় সোচ্চার থাকবে। নারীর অধিকার আদায়ে সিপিবির আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.