নরসিংদীতে তরুণীকে হেনস্থার মূল অভিযুক্ত নারী গ্রেপ্তার

নরসিংদীর একটি রেলস্টেশনে পোশাকের কারণে এক তরুণীকে হেনস্থার ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত অভিযুক্ত সন্দেহে এক নারীকে গ্রেপ্তার করেছে বিশেষ বাহিনী র‌্যাব-১১।

গতকাল রোববার দিবাগত রাত তিনটার দিকে শিবপুর উপজেলার ইটাখোলা এলাকায় এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার ওই নারীর নাম মার্জিয়া আক্তার ওরফে শিলা ওরফে সায়মা (৬০)। তিনি পেশায় একজন ঘটক ও শহরের উপজেলা মোড়ের একটি বাড়ির ভাড়াটিয়া ফয়েজ আহমেদের স্ত্রী। ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ভিডিও ও সিসিটিভি ফুটেজ বিশ্লেষণ করে ওই নারীকে শনাক্ত করে মামলার আসামি করা হয়।

প্রসঙ্গত, গত ১৮ মে তারিখে সংঘটিত হওয়া ওই হেনস্থার ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর তা নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়। এ নিয়ে ঢাকায় ও নরসিংদীতে বিক্ষোভও অনুষ্ঠিত হয়েছে।

এর আগে তরুণী হেনস্থার ঘটনার দুই দিন পর নরসিংদী রেলওয়ে স্টেশনসংলগ্ন এলাকা থেকে মো. ইসমাইল নামের একজনকে আটক করে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। পরে তাঁকে ভৈরব রেলওয়ে থানা-পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়। পরের দিন তাঁকে ৫৪ ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে নরসিংদীর অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মেহনাজ সিদ্দিকীর আদালতে তোলা হয়। আদালত তাঁকে জেলহাজতে পাঠান এবং এই ঘটনায় মামলা করার নির্দেশ দেন। ওই রাতে ভৈরব রেলওয়ে থানায় মামলা করেন নরসিংদী রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইমায়েদুল জাহেদী। মামলায় মো. ইসমাইল ও মার্জিয়া আক্তারের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতনামা আরও ৮ থেকে ১০ জনকে আসামি করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ১৮ মে ভোরবেলা নরসিংদী রেলস্টেশনে একজন তরুণী আর তার বন্ধু একদল স্থানীয় মানুষের তীব্র রোষের মুখে পড়েন। তাদের এই রোষের কারণ ছিল তরুণীটির পরিধেয় পোশাক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.