ধর্ষণবিরোধী লংমার্চে হামলার প্রতিবাদে নিউইয়র্কে সমাবেশ

ধর্ষণ ও বিচারহীনতা বিরোধী ঢাকা থেকে নোয়াখালী লংমার্চের সময় পুলিশের সহায়তায় দফায় দফায় সরকারী দলের সন্ত্রাসীরা লংমার্চে অংশগ্রহণকারীদের ওপর হামলা করে। এতে প্রায় অর্ধশতাধিক আহত হয়।

এ সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে এবং দেশে ধর্ষণ বিরোধী আন্দোলনকারীদের ৯ দফা দাবীর সমর্থনে গত (১৯ অক্টোবর) সোমবার বিকাল ৫টায় ধর্ষণ ও বিচারহীনতার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যানারে নিউইয়র্কের জ্যামাইকা ১৬৯ স্ট্রীটে এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী, যুক্তরাষ্ট্র সংসদ এর সহসভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা সুব্রত বিশ্বাস এর সভাপতিত্বে ও সাবেক ছাত্র ইউনিয়ন নেতা জাকির হোসেন বাচ্চু’র সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা, হামলা-মামলা থেকে বিরত থাকার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান ও ব্যর্থ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অপসারণ দাবী করেন।

বক্তারা অবিলম্বে ব্যর্থ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর অপসারণের পাশাপাশি সরকারকে বিচারহীনতার সংস্কৃতি থেকে বের হয়ে আসারও আহ্বান জানান।

সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রোগ্রেসিভ ফোরাম ইউএসএ-এর সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা খোরশেদেুল ইসলাম, বীরমুক্তিযোদ্ধা কাসেম আলী, বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী যুক্তরাষ্ট্র সংসদ-এর সহসভাপতি সরাফ সরকার, সাবেক ছাত্রনেতা ও প্রোগ্রেসিভ ফোরাম এর সাধারণ সম্পাদক আলীম উদ্দিন, নারীনেত্রী সালেহা আক্তার, মহিলা পরিষদ যুক্তরাষ্ট্র-এর সাধারণ সম্পাদক নারীনেত্রী সুলেখা পাল, উদীচী যুক্তরাষ্ট্র সংসদ-এর প্রচার সম্পাদক আশীষ রায়, সাবেক ছাত্র ইউনিয়ন নেতা হিরু চৌধুরী, উদীচী কর্মী কানন আচার্য, উদীচী কর্মী ইসতিয়াক আহমেদ রানা, জয়ন্তী ভট্টাচার্য, রিনা আফরোজ, শেখ ফারুখ, ফাহিমা, রূপনা সাহা প্রমুখ।

বক্তারা হামলা করে আন্দোলন বন্ধ করার নেতিবাচক কৌশল থেকে বিরত থাকার জন্য সরকার ও সরকার দলীয় সন্ত্রাসীদের সতর্ক করে বলেন, দমন-পীড়ন চালিয়ে কখনো কেউ ক্ষমতায় থাকতে পারেনি, বিনা ভোটে নির্বাচিত আওয়ামীলীগ সরকারও পারবে না।

সমাবেশে বক্তারা, গ্রেপ্তারকৃত পাট নিয়ে আন্দোলনকারীদেরও অবিলম্বে মুক্তির দাবী জানান। সমাবেশ চলাকালীন জ্যামাইকায় বসবাসরত বাঙালী নারী পুরুষ অনেকেই আন্দোলনের প্রতি তাদের সংহতি প্রকাশ করেন।