দেশবরেণ্য রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী মিতা হকের মৃত্যুতে সিপিবি’র শোক

দেশবরেণ্য রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী মিতা হক প্রয়াত হয়েছেন।

আজ (১১ এপ্রিল) রবিবার সকাল ৬টা ২০ মিনিটে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। করোনায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন ছিলেন মিতা হক। তবে চার দিন আগে করোনা নেগেটিভ হয়েছিলেন তিনি।

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম দেশবরেণ্য রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী ও সিপিবি’র সুহৃদ মিতা হকের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

এক শোক বিবৃতিতে সিপিবি’র নেতৃবৃন্দ বলেন, শৈশব খেলাঘর আসরের সদস্য হিসেবে মিতা হক প্রগতিশীল সংস্কৃতি চর্চা শুরু করেছিলেন তা তিনি আমৃত্যু বজায় রেখেছিলেন।

তিনি ছায়ানট ও রবীন্দ্রসংগীত সম্মিলন পরিষদের সংগঠক হিসেবে সুস্থ ও প্রগতিশীল ধারার সংস্কৃতির চর্চা ও বিকাশের ক্ষেত্রে কৃতিত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন যা স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

নেতৃবৃন্দ সিপিবির বিভিন্ন অনুষ্ঠানে মিতা হকের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণের কথা কৃতজ্ঞচিত্তে স্মরণ করেন।

নেতৃবৃন্দ মিতা হকের শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যবৃন্দের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানান।

উল্লেখ্য, আজ বেলা ১১টায় শেষ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য মরদেহ ছায়ানটে নেওয়া হবে। তাঁকে দাফন করা হবে কেরানীগঞ্জের বড় মনোহারিয়ায়, বাবা-মায়ের কবরের পাশে।  তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৯ বছর।

প্রসঙ্গত, মিতা হকের জন্ম ১৯৬২ সালের সেপ্টেম্বরে ঢাকায়। তিনি প্রয়াত অভিনেতা খালেদ খানের স্ত্রী। তাঁর চাচা দেশের সাংস্কৃতিক আন্দোলনের অগ্রপথিক ও রবীন্দ্র গবেষক ওয়াহিদুল হক। মেয়ে জয়িতাও রবীন্দ্রসংগীতশিল্পী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.