ডলারের বিপরীতে টাকার মান কমছে যেভাবে

মূল্যমান পতনের বিচারে গত ১ জানুয়ারি থেকে ২৭ জুলাই পর্যন্ত এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে পঞ্চম স্থানে রয়েছে বাংলাদেশী টাকা। গত সাত মাসে ডলারের বিপরীতে টাকার মূল্যমান কমেছে ৯ দশমিক ৪০ শতাংশ।

এই সময়ে এশিয়ার সবচেয়ে দুর্বলতম মুদ্রা ছিল পাকিস্তানি রুপি। আলোচ্য সময়ে ডলারের বিপরীতে মুদ্রাটির অবমূল্যায়ন হয়েছে ২৬ দশমিক ৩১ শতাংশ। পাকিস্তানি রুপির পর সবচেয়ে বেশি পতন হয়েছে জাপানি ইয়েনের। গত সাত মাসে মুদ্রাটির অবমূল্যায়ন হয়েছে ১৬ দশমিক শূন্য ৯ শতাংশ।

দৈনিক বণিকবার্তা (অনলাইন) –এর এক প্রতিবেদনে আজ এসব খবর পরিবেশন করা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মূল্যমান সবচেয়ে বেশি কমেছে এমন তৃতীয় মুদ্রা হলো থাই বাথ। জানুয়ারি মাসের তুলনায় গতকাল পর্যন্ত মুদ্রাটির অবমূল্যায়ন হয়েছে ৯ দশমিক ৯৬ শতাংশ। পতন বেশি হয়েছে এমন চতুর্থ মুদ্রা হলো দক্ষিণ কোরিয়ার ওন। এ সময়ে মুদ্রাটির অবমূল্যায়ন হয়েছে ৯ দশমিক ৫২ শতাংশ।

উল্লেখ্য, রাশিয়া ও ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাবে ডলারের বিপরীতে সবচেয়ে দুর্বল হয়েছে এশিয়ার মোট ১৩টি দেশের মুদ্রা। বাংলাদেশসহ দেশগুলোর মধ্যে আছে পাকিস্তান, জাপান, থাইল্যান্ড, দক্ষিণ কোরিয়া, ফিলিপাইন, তাইওয়ান, ভারত, মালয়েশিয়া, চীন, ইন্দোনেশিয়া, সিঙ্গাপুর ও হংকং।

সূত্র: দৈনিক বণিকবার্তা (অনলাইন)/ ছবি: দৈনিক বণিকবার্তা (অনলাইন)। 

Leave a Reply

Your email address will not be published.