টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলবেন না তামিম; কেন?

আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে খেলবেন না বলে জানিয়ে দিয়েছেন বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় তামিম ইকবাল।

আজ বুধবার নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পাতায় একটি ভিডিও বার্তায় তিনি জানিয়েছেন যে তিনি আসন্ন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলবেন না।

ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজ থেকে তামিম বলেন, “আমার মনে হয় না আমার বিশ্বকাপে থাকা উচিত”।

এর আগে তিনি বিষয়টি নিয়ে ক্রিকেট বোর্ডের প্রেসিডেন্টের সাথেও কথা বলেছেন বলে জানান।

কেন এই সিদ্ধান্ত নিলেন তামিম?

ভিডিও বার্তায় তাঁর এ সিদ্ধান্তের কিছু কারণ জানিয়েছেন তামিম।

অনেকদিন ধরে টি টোয়ন্টি ক্রিকেটে না থাকাকেই এই সিদ্ধান্তের পেছনে বড় কারণ হিসেবে বলছেন বাংলাদেশের ওয়ানডে দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

তিনি বলেন, “আমার কাছে মনে হয় বেশ কয়েকদিন ধরে খেলছিনা। ইনজুরিটা দ্বিতীয় কারণ, কিন্তু ইনজুরিটা সমস্যা হবে না।”

এর আগে নিউজিল্যান্ড, জিম্বাবুয়ে ও অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে ছিলেন না তামিম। শেষবার তামিম আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেন ২০২০ সালের মার্চ মাসে। তবে নিউজিল্যান্ড ও জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে ফরম্যাটে খেলেছেন তিনি।

“মূল যে ব্যাপারটা হচ্ছে, আমি ১৫-১৬টা টি টোয়েন্টি ম্যাচ মিস করেছি,” এই সময়ে যারা ওপেনিং স্পটে ব্যাটিং করেছেন তাদের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি ভালো বলে মনে করেন তামিম ইকবাল।

তিনি বলেন, “হয়তো বা আমি টি-টোয়েন্টি দলে থাকতাম কিন্তু এটা মনে হয় ফেয়ার হতো না।”

তবে তিনি মনে করিয়ে দিয়েছেন যে টি টোয়েন্টি ফরম্যাট থেকে এখনই অবসরে যাচ্ছেন না।

প্রসঙ্গত, হুট করে দল থেকে নিজেকে সরিয়ে নেওয়ার ব্যাপারটি সবাইকে চমকেই দিয়েছে। যতটুকু জানা গেছে, বিশ্বকাপের জন্য নির্বাচকদের খসড়া দলে তিনি ছিলেন। তাঁকে নিয়েই আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমানে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলতে যাওয়ার কথা ছিল বাংলাদেশের।

উল্লেখ্য, সব ফরম্যাটের ক্রিকেটেই তামিম ইকবাল বাংলাদেশের সেরা রান সংগ্রাহক।

৪৭৮৮ টেস্ট রান, ৭৬৬৬ ওয়ানডে রান এবং ১৭৫৮ আন্তর্জাতিক টি টোয়েন্টি রান আছে তামিম ইকবালের ব্যাটে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.