টাঙ্গাইলে ‘কোচ’ নারী ‘দলবদ্ধ ধর্ষণ’র শিকার

টাঙ্গাইলে এক ‘কোচ’ আদিবাসী নারী ‘দলবদ্ধ ধর্ষণ’ ও বর্বরোচিত নির্যাতনের শিকার হয়েছেন।

৪০ বছর বয়সী ওই নারী মুমূর্ষু অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। তাকে টাঙ্গাইল সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

ঘটনা ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার। টাঙ্গাইলের সখিপুর উপজেলার বাজাইল বড়চালা গ্রামের ওই ঘটনা স্থানীয় সাংবাদিকরা জানতে পারেন মঙ্গলবার।

এ ঘটনায় রোববার ওই নারী নিজে বাদী হয়ে সখিপুর থানায় তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

আসামিরা হলেন ওই এলাকার টেংগু সরকারের ছেলে দীনা সরকার (৩৩), নারায়ণচন্দ্র সরকারের ছেলে মন্টু সরকার (৩০) ও ময়নাল মিয়ার ছেলে শবদুল মিয়া (২৮)।

বিডিনিউজ টিয়েন্টি ফোর ডট কমের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই নারী সাংবাদিকদের বলেন, বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে তিন আসামি মাতাল অবস্থায় তার বাড়িতে যায়।

“তারা আমাকে ঘর থেকে বের করে পাশের একটি ফাঁকা জায়গায় নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে দীনা সরকার আমার মুখসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কামড় দেয়, নির্যাতন করে।”

তার চিৎকার শুনে আশপাশের লোকজন ছুটে গেলে আসামিরা দৌড়ে পালিয়ে যায় বলে মামলায় অভিযোগ করেছেন ওই নারী।

ঘটনার বিচার দাবিতে মঙ্গলবার টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ কোচ আদিবাসী ইউনিয়ন মানববন্ধন করে। আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচারের আওতায় আনার দাবি জানায় সংগঠনটি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.