জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি প্রত্যাহার চায় সিপিবি

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে রাজধানীর পুরানা পল্টন মোড়ে সমাবেশ করেছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি-সিপিবি।

বর্তমান সরকার ফ্যাসিবাদী কায়দায় দেশ পরিচালনা করছে। জনগণের কোনো দায়-দায়িত্ব নিচ্ছে না। এরই ধারাবাহিকতায় সরকার রাতের অন্ধকারে ডিজেল-কেরাসিন তেল-এলপিজি গ্যাসের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে।

গতকাল (৫ নভেম্বর) শুক্রবার পুরানা পল্টন মোড়ে আয়োজিত এক সমাবেশে সিপিবি নেতৃবৃন্দ এসব কথা বলেন।

সিপিবি’র সভাপতি কমরেড মুজাহিদুল ইসলাম সেলিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন পার্টির সাধারণ সম্পাদক কমরেড মোহাম্মদ শাহ আলম, সহকারী সাধারণ সম্পাদক কাজী সাজ্জাদ জহির চন্দন।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, দেশে যখন করোনা মহামারি চলছে মানুষের ক্রয় ক্ষমতা হ্রাস পাচ্ছে, জীবন দুর্বিষহ হয়ে যাচ্ছে ঠিক সেই মুহূর্তে দাম বৃদ্ধি করা মরা উপর খাড়ার ঘাঁ’র সামিল।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ইতিমধ্যেই নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম ক্রমাগতভাবে বেড়ে চলছে। এ মুহূর্তে তেলে দাম বৃদ্ধি সাধারণ মানুষের জীবন-জীবিকাকে আরো সংকটের মধ্যে নিয়ে যাবে।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, তেলের দাম বৃদ্ধির সাথে সাথে বাস ভাড়া, পণ্য পরিবহণ ব্যয় বেড়ে যাবে। এর আঘাত পড়বে নিম্নবিত্ত শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের উপরে। সরকারের সীমাহীন দুর্নীতি, লুটপাটের আর্থিক দায় জনগণের কাধে চাপাতেই জ্বালানি তেলে এই মূল্য বৃদ্ধি। সমাবেশ থেকে অবিলম্বে ডিজেল, কেরাসিন ও এলপিজি গ্যাসের দাম বাড়ানোর সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করার দাবি জানানো হয় এবং দাবি মানা না হলে আরো কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করা হয়।

সমাবেশে সরকারের এই গণবিরোধী সিদ্ধান্ত এবং দুঃশাসনের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক আন্দোলন গড়ে তোলার এবং সারাদেশে পার্টি নেতৃবৃন্দকে জনগনকে সাথে নিয়ে রাজপথে প্রতিরোধ গড়ে তোলার আহ্বান জানানো হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.