জয়পুরহাট জেলা ছাত্র ইউনিয়ন সভাপতি রিফাত, সম্পাদক তাসরিন

“ছাত্র জনতা ঐক্য গড়ে, শিক্ষা বাঁচাও দেশ বাঁচাও” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে জয়পুরহাট জেলা ছাত্র ইউনিয়নের ১৫তম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সম্মেলনে রিফাত আমিন রিয়নকে সভাপতি, তাসরিন সুলতানাকে সাধারণ সম্পাদক এবং রুবেল হোসেনকে সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে নির্বাচিত করে ২৩ সদস্য বিশিষ্ট জেলা কমিটি গঠন করা হয়।

বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) জেলা শহরের শহীদ কবি মাহতাব উদ্দিন বিদ্যাপীঠে সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলন উদ্বোধন করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার আমজাদ হোসেন।

সম্মেলন উদ্বোধন শেষে শহীদ কবি মাহতাব উদ্দিন বিদ্যাপীঠ থেকে একটি সুসজ্জিত র‌্যালি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়।

উদ্বোধনী সমাবেশে জেলা আহবায়ক রিফাত আমিন রিয়নের সভাপতিত্বে ও তাসরিন সুলতানার সঞ্চালনায় বক্তব্য দেন, ছাত্র ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় সভাপতি মেহেদী হাসান নোবেল, কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি নাদিম মাহমুদ, ছাত্র ইউনিয়ন সাবেক কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি ও জেলা সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম নান্নু, জেলা কমিউনিস্ট পার্টির সাধারণ সম্পাদক এম এ রশিদ প্রমুখ।

সম্মেলনে উদ্বোধন ঘোষণা করে বীর মুক্তিযোদ্ধা আমজাদ হোসেন বলেন- স্বাধীনতা উত্তর বাংলাদেশের প্রতিটি ছাত্র আন্দোলনে ছাত্রদের ন্যায় সংগত দাবি আদায়ে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে ছাত্র ইউনিয়ন। ছাত্র সমাজ এখনও  ছাত্র ইউনিয়নেই ভরসা রাখে।

সম্মেলনে কেন্দ্রীয় সভাপতি মেহেদী হাসান বলেন, “শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে রাজপথ, পাহাড়-সমতল, সীমান্ত প্রতিটি জায়গায় কারো নিরাপত্তা নেই। একটি নিরাপদ শিক্ষাঙ্গল একটি নিরাপদ ভয় মুক্ত দেশ গড়তে বিগত সময়ের মতো ছাত্রদেরই রাজপথে আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। ছাত্র জনতার ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনই আবার দেশকে পথ দেখাবে”।

সমাবেশে জাহাঙ্গীর আলম নান্নু বলেন, বাংলাদেশের কান্তিলগ্নে ছাত্ররা প্রতিরোধ আন্দোলন গড়ে তুলেছে এবং ছাত্র ইউনিয়ন ছাত্র সমাজকে নেতৃত্ব দিয়েছে। আগামী দিনের আন্দোলনেও ছাত্র ইউনিয়নকেই দায়িত্ব নিতে হবে।

কাউন্সিল শেষে নব-নির্বাচিত কমিটিকে শপথ বাক্য পাঠ করান ছাত্র ইউনিয়ন কেন্দ্রীয় সভাপতি মেহেদী হাসান নোবেল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.