চীনে নতুন পরিবার পরিকল্পনা নীতিতে তিন সন্তানের অনুমোদন

চীনে নতুন পরিবার পরিকল্পনা নীতি গ্রহণ করেছে সে দেশের সরকার। এখন থেকে চীনের দম্পতিদের তিনটি পর্যন্ত সন্তান নেওয়ার অনুমোদন দেওয়া হল।

চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সিনহুয়ার খবরে এসব কথা বলা হয়েছে।

বার্তা সংস্থা এএফপির খবরে বলা হয়েছে, চীন সরকার দেশটিতে আদমশুমারি চালিয়ে জানতে পেরেছে, দ্রুত দেশটিতে বয়স্ক মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। এরপর এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

এর মাধ্যমে দেশটির কঠোর দুই সন্তান নীতির অবসান ঘটল।

এর আগে কঠোর পরিবার পরিকল্পনা নীতির মধ্য দিয়ে গেছে চীন। গত ৪০ বছর ধরে নীতি ছিল, এক যুগল এক সন্তান। এই নীতি থেকে ২০১৬ সালে বেরিয়ে আসে চীন। এরপর থেকে দম্পতিরা দুটি সন্তান নিতে পারতেন। অর্থনৈতিক স্থবিরতা ও জনশক্তির কথা বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।

সিনহুয়ার খবরে বলা হয়েছে, বয়স্ক মানুষের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ার বিরুদ্ধে কার্যকর পদক্ষেপ হিসেবে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। চীনের কমিউনিস্ট পার্টির পলিটব্যুরোর আজ সোমবারের বৈঠক থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই বৈঠকের নেতৃত্ব দিয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট সি জিন পিং।

প্রসঙ্গত, ১৯৭৯ সালে জনসংখ্যা বৃদ্ধির লাগাম টেনে ধরার লক্ষ্যে চীনে ‘এক সন্তান নীতি’ চালু করা হয়েছিল। তারপর থেকে এই নীতি লঙ্ঘন করা পরিবারগুলোকে জরিমানা, চাকরি হারানো এবং কখনো কখনো জোরপূর্বক গর্ভপাতের শিকারও হতে হয়েছিল বলে বিবিসি জানিয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.