চট্টগ্রামের পাহাড়তলী বধ্যভূমি সংরক্ষণের দাবি

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসে চট্টগ্রামের পাহাড়তলী বধ্যভূমিতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও দখলকৃত ভূমি পুনরুদ্ধারসহ দেশের সকল বধ্যভূমি সংরক্ষণের দাবি জানিয়েছে ছাত্র ইউনিয়ন, যুব ইউনিয়ন, উদীচী ও খেলাঘরসহ প্রগতিশীল গণসংগঠনগুলো।

শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) প্রগতিশীল গণসংগঠনগুলোর সম্মিলিত পরিবেশনা ‘আগুনের পরশমণি ছোঁয়াও প্রাণে’ গানের মধ্য দিয়ে সন্ধ্যায় বধ্যভূমির স্মৃতিসৌধজুড়ে জ্বলে ওঠে হাজারো প্রদীপ।

এ সময় কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া শিশু থেকে বিভিন্ন বয়সী নারীপুরুষ সবার হাতে ছিল জ্বলন্ত মোমবাতি।

আলোচনা সভায় বক্তারা, পাহাড়তলী বধ্যভূমিতে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ ও দখলকৃত ভূমি পুনরুদ্ধার করে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচিহ্ন সংরক্ষণের দাবি জানান।

বক্তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধের মূলনীতি ছিল গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা, জাতীয়তাবাদ। কিন্তু বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকার মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বললেও তারা পূর্ববর্তী সরকারের দেখানো পথেই হাটছে। সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর সাথে সরকার আতাঁত করছে। মানুষের গণতান্ত্রিক, নাগরিক ও মানবিক অধিকার হরণ করা হচ্ছে। গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলোকে ধ্বংস করা হয়েছে এবং মুক্তিবুদ্ধির চর্চার পথ রুদ্ধ করা হচ্ছে।

বক্তারা তাই বুদ্ধিজীবীদের সম্মানে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় অসাম্প্রদায়িক ও গণতান্ত্রিক দেশ গঠনের আহবান জানান।

উদীচীর সংগঠক ডাঃ চন্দন দাসের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন প্রকৌশলী রূপক চৌধুরী, উজ্জ্বল শিকদার, জয় সেন, এ্যানি সেন, প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.