ঘুর্ণিঝড় ‘সিত্রাং’: গতিমুখ বাংলাদেশের দিকেই

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ‘সিত্রাং’ নামের ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব এরই মধ্যে পড়তে শুরু করেছে বাংলাদেশে। যা এখন প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিয়েছে। এর গতিমুখ বাংলাদেশের দিকেী বলে জানাচ্ছে আবহাওয়া বিভাগ।

এটি এগিয়ে আসছে উপকূলের দিকেই। এর প্রভাবে দেশের উপকূলীয় জেলাগুলোতে প্রচণ্ড ঝোড়ো হাওয়া বইছে, হচ্ছে প্রচুর বৃষ্টি।

আবহাওয়া বিভাগ বলছে, সিত্রাং নামের এই ঘূর্ণিঝড়টির কেন্দ্র মঙ্গলবার ভোরবেলা বাংলাদেশের কুয়াকাটা সমুদ্রসৈকত এলাকা দিয়ে (খেপুপাড়া) বরিশাল-চট্টগ্রাম উপকূল অতিক্রম করবে।

আবহাওয়া বিভাগ আরও জানায়, ভোরে ঘূর্ণিঝড়টির কেন্দ্র বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করলেও এর অগ্রভাগ মূল ভূখণ্ডে প্রবেশ করবে আগেই, মধ্যরাতের দিকে।

তবে এটি ‘সুপার সাইক্লোন’ হওয়ার কোন আশঙ্কা নেই বলেও জানানো হয়েছে আবহাওয়া বিভাগ থেকে।

এরই মধ্যে ঘূর্ণিঝড় নিয়ে বিশেষ বুলেটিন প্রকাশ করা শুরু করেছে বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর।

দুপুরে প্রকাশিত সবশেষ বুলেটিনে বলা হচ্ছে, মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরে ৭ নম্বর বিপদসংকেত জারি করা হয়েছে।

এছাড়া তেরটি জেলা ও জেলাগুলো সংলগ্ন দ্বীপগুলোকে ৭ নম্বর বিপদসংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

জেলাগুলো হচ্ছে: ১. সাতক্ষীরা ২. খুলনা ৩. বাগেরহাট ৪. ঝালকাঠি ৫. পিরোজপুর ৬. বরগুনা ৭. পটুয়াখালী ৮. ভোলা ৯. বরিশাল ১০. লক্ষ্মীপুর ১১. চাঁদপুর ১২. নোয়াখালী ১৩. ফেনী।

জেলাগুলোর নদীবন্দরগুলোকে তিন নম্বর সতর্কসংকেত দেখানো হচ্ছে।

এছাড়া চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে দেখাতে বলা হয়েছে ৬ নম্বর বিপদসংকেত। চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলা এবং সংলগ্ন দ্বীপগুলোকেও দেখানো হচ্ছে ৬ নম্বর বিপদসংকেত।

এই পনেরটি জেলাতেই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে জলোচ্ছাস হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এ জলোচ্ছাসের উচ্চতা স্বাভাবিকের তুলনায় ৫ থেকে ৮ ফুট উঁচু হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করা হয়েছে আবহাওয়ার সবশেষ বুলেটিনে।

উল্লেখ্য, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরে ৭ নম্বর বিপদ সংকেত এবং চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেখানো হয়েছে। এছাড়া উপকূলীয় এলাকায় ভারী বর্ষণ এবং জলোচ্ছ্বাসের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া বভাগ।

এদিকে দেশের দক্ষিণাঞ্চলে সব ধরনের লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

আবহাওয়া অফিস বলছে, মঙ্গলবার ভোররাত বা সকাল নাগাদ খেপুপাড়ার কাছ দিয়ে বরিশাল-চট্টগ্রাম উপকূল অতিক্রম করতে পারে সিত্রাং।

Leave a Reply

Your email address will not be published.