‘গুচ্ছ পদ্ধতিতে’ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পরিকল্পনা

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে ইতোমধ্যেই সরকার এ বছরের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেক্ষেত্রে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য ‘গুচ্ছ পদ্ধতিতে’ অবলম্বন করার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের।

তবে আদৌ সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী ভর্তি কার্যক্রম চালানো সম্ভব হবে কি না তা নিয়ে সংশয়ও প্রকাশ করেছেন শিক্ষামন্ত্রী।

আজ (৭ অক্টোবর) বুধবার অনলাইন সাংবাদিক সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “আমরা আশা করছি সমন্বিত পদ্ধতিতেই আমরা সব ধরনের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা নিতে পারব।”

সেই পরীক্ষাগুলো কীভাবে হবে, গুচ্ছ পদ্ধতি কেমন হবে, তখনকার করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে আলোচনা করে সে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “কারণ এখনও তিন মাস বাকি আছে। তিন মাস পরে সেই মূল্যায়নের জন্য কী পরিস্থিতি হয় তার উপর নির্ভর করে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।”

এইচএসসি পরীক্ষা না নেওয়ার সিদ্ধান্ত হওয়ায় এ পরীক্ষার মূল্যায়ন তৈরিতে পরামর্শ দেওয়ার জন্য একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি করে দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এই কমিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা নিয়েও মতামত দেবে জানিয়ে দীপু মনি বলেন, নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে কমিটির পূর্ণাঙ্গ পরামর্শ তারা পাবেন বলে আশা করছেন।

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী বলেন, কোন পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা হবে তা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকের সঙ্গে বিশেষজ্ঞ কমিটির আলোচনার মাধ্যমে নির্ধারিত হবে।

বর্তমানে দেশে ৪৬টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা কার্যক্রম চলছে। এর মধ্যে ৩৯টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬০ হাজার আসনে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পান উচ্চ মাধ্যমিক পার হওয়া শিক্ষার্থীরা।