গণমানুষের পত্রিকা একতা

প্রকৌশলী শেখ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ

[প্রকৌশলী শেখ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ’র  ৯০তম জন্মদিন আজ। তেল গ্যাস খ‌নিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় ক‌মি‌টি’র আহ্বায়ক শেখ মুহাম্মদ শহীদুল্লাহ এ লেখাটি ‘সাপ্তাহিক একতা’র ০৫ আগস্ট, ২০১৮ সংখ্যায় লিখেছিলেন। লেখাটি একতা টেলিভিশনের পাঠকদের জন্য প্রকাশ করা হল। -নির্বাহী সম্পাদক।] 

মানবজাতির কল্যাণের জন্য যে সমাজব্যবস্থা, রাষ্ট্রব্যবস্থা দরকার, অর্থাৎ সমাজতান্ত্রিক রাষ্ট্র তা প্রতিষ্ঠিত করতে হবে বর্তমান শ্রেণি শোষণে নিবেদিত রাষ্ট্রশক্তিকে উৎখাত করে। এই কাজে যে সকল বামপন্থি রাজনৈতিক দল নিবেদিত আছেন তাদের বুদ্ধি-পরামর্শ দিয়ে সাহায্য করা, আর্থিক সাহায্য করা বড় কাজ। যদিও সিংহভাগ সময় আমি দিয়েছি প্রফেশনে, কিন্তু যেটুকুসময় বাঁচে, যেটুকু অর্থ বাঁচে সেটা আমার ব্যক্তিভোগের কাজে না লাগিয়ে আমি সব সময় এটা করেছি।

যেসব প্রকৃত বামপন্থি দল সক্রিয় আছে তার মধ্যে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)কে বেছে নিলাম এই কারণে যে, তাদের লাইন যদি সম্পূর্ণ সঠিক নাও হয় বা তাদের মধ্যে বিপ্লবী শক্তির ঘাটতিও থাকে, তবুও তাদের ক্রিয়াকলাপে সততা ও স্বচ্ছতা আছে। সততা হচ্ছে আমার মূল চাবিকাঠি। একজন কট্টর বিপ্লবী যদি ভেতরে অসৎ হয় তবে তাঁর নেতৃত্বে বিপ্লব আপাতত সফল হলেও স্বার্থপর ও অসৎ নেতৃত্বের কারণে দেশের চূড়ান্ত পরিণতি অমঙ্গলজনক হতে বাধ্য। পক্ষান্তরে নেতা সৎ থাকলে চূড়ান্ত পর্যায়ে সে সঠিক লাইন বেছে নেবে ও তা বাস্তবায়নের জন্য পূর্ণশক্তি নিয়োগে কোনো দ্বিধা করবে না।

সাপ্তাহিক ‘একতা’ সিপিবি’র মুখপত্র। পত্রিকাটির গুরুত্বপূর্ণ ইতিহাস ও ঐতিহ্য রয়েছে। তবে বর্তমানে সেই ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতার ঘাটতিও রয়েছে। পার্টি মানুষের সার্বিক মুক্তির আন্দোলনে যত বেশি যুক্ত হবে তত এই ঘাটতি পূরণ করতে সক্ষম হবে। পার্টি সদস্য ও শুভাকাক্সক্ষীদের বাইরেও সচেতন রাজনৈতিক মানুষের জন্য এই পত্রিকাটি গুরুত্বপূর্ণ। কেননা এই পত্রিকায় বিশ্ব, রাজনীতি, দর্শন, অর্থনীতি, সমাজব্যবস্থা বিষয়ে কলাম, প্রবন্ধ প্রকাশিত হয়। এছাড়াও শিল্প-সাহিত্য, বিজ্ঞান-ইতিহাস ও নারীমুক্তি বিষয়ক লেখা প্রাধান্য পেয়ে থাকে।

এছাড়াও একতার সাথে আমার একটা গভীর সখ্যতা রয়েছে, সাপ্তাহিক একতার জন্মদিন ও আমার জন্মদিন একই দিনে! একতা গণমানুষের পত্রিকা হয়ে উঠুক–৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এই প্রত্যাশা একতা পরিবারের কাছে থাকলো।

লেখক: আহ্বায়ক, তেল-গ্যাস, খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি । 

Leave a Reply

Your email address will not be published.