করোনায় সর্বোচ্চ ১৫৩ মৃত্যু, মোট মৃত্যু ১৫ হাজার ছড়াল

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে টানা অষ্টম দিনের মতো আজও শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ১৫৩ জন কভিড পজিটিভ রোগীর মৃত্যু হয়েছে। যা এযাবৎকালের মুধ্যে সুর্বোচ্চ। এ নিয়ে দেশে মোট মৃত্যুর সুংখ্যা ১৫ হাজার ছড়াল।

এ সময় ৮ হাজার ৬৬১ জনের শরীরে ভাইরাসটির সংক্রমণ শনাক্ত হয়।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত সংবাদ বুলেটিনে এসব তথ্য জানানো হয়।

জানা যায়, গত ২৭ জুন থেকে গতকাল পর্যন্ত এক সপ্তাহে ৮৫৯ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা আগের সপ্তাহের তুলনায় ৪৬ শতাংশ বেশি। গত সপ্তাহে ৫৩ হাজার ১১৮ জন করোনা পজিটিভ হয়েছে, যা আগের সপ্তাহে ছিল ৩৫ হাজার ১১১ জনে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, গতকাল আজ সকাল ৮টা পর্যন্ত সারা দেশে ৬০৩টি পরীক্ষাগারে ২৯ হাজার ৮৭৯টি নমুনা পরীক্ষার করা হয়। এ পর্যন্ত সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৬৭ লাখ ২৩ হাজার ৫৬০টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। সকাল পর্যন্ত দেশে মোট করোনা রোগীর মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৫ হাজার ৬৫ জনে। আর করোনা শনাক্ত হয়েছে ৯ লাখ ৪৪ হাজার ৯১৭ জন। সর্বশেষ নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা বিবেচনায় শনাক্তের হার ২৮ দশমিক ৯৯ শতাংশ। মোট শনাক্তের হার ১৪ দশমিক ০৫ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৮৮ দশমিক ২৫ শতাংশ। আর মৃত্যুহার ১ দশমিক ৫৯ শতাংশ।

গত কয়েক দিনের মতো খুলনা ও ঢাকা বিভাগে মৃত্যুর সংখ্যার ঊর্ধ্বগতি রয়েছে। গতকাল খুলনায় ৫১ ও ঢাকায় ৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে।

করোনার ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট বিস্তারের মধ্যে গত ২৯ জুন আক্রান্তের সংখ্যা নয় লাখ পেরিয়ে যায়। পরদিন ৩০ জুন সর্বোচ্চ ৮ হাজার ৮২২ জন নতুন রোগী শনাক্ত হন। প্রথম মৃত্যুর ১০ দিন পর গত বছরের ১৮ মার্চ প্রথম কভিড-১৯ রোগীর মৃত্যু হয়। মৃতের সংখ্যা চলতি বছরের ২৬ জুন ১৪ হাজার ছাড়িয়ে যায়। এর মধ্যে ১ জুলাই সর্বোচ্চ ১৪৩ জনের মৃত্যু হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.