করোনার সংক্রমণে মৃত্যু বেড়েছে গ্রামাঞ্চলে

সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশের গ্রাম পর্যায়ে করোনাভাইরাস ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পরেছে। দেশের বিভিন্ন প্রত্যন্ত অঞ্চলে করোনার উপসর্গ নিয়ে মারা যাচ্ছেন অনেকে৷

কিন্তু পরীক্ষাকরণ কিংবা সনাক্তকরণের অভাবে গ্রামগুলোতে করোনায় আক্রান্ত কিংবা মৃত্যুর সঠিক পরিসংখ্যান সরকারি হিসাবে উঠে আসছে না বলে মত দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা৷

আজ ডিডব্লিউ বাংলা (অনলাইন) এর এক সংবাদ প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্রামে কি পরিমান বাজে পরিস্থিতি বিরাজ করছে পরিসংখ্যানের মাধ্যমে সেটি আঁচ করা সম্ভব না।

সেখানকার হাসপাতালগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। তবে করোনায় মৃত্যু তালিকায় তাদের নাম আসছে না৷ শুধু যারা হাসপাতালে করোনা পজেটিভ হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যাচ্ছেন, সেই সংখ্যাটিই করোনায় নিহত বলে লিপিবদ্ধ হচ্ছে৷

প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে।, চলতি মাসের ২৩ দিনে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা আগের সব মাসের রেকর্ডকে ছাড়িয়ে গেছে৷

সরকারের তথ্য অনুযায়ী, গত ২৩ দিনে দুই লাখ ৫৬ হাজার একশ ৯৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন৷ আর করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ৪ হাজার ৩৪৭ জন মারা গেছেন৷

এর বাইরেও সারাদেশে করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে৷ আর মৃত্যুর সংখ্যা গ্রামে সবচেয়ে বেশি৷

Leave a Reply

Your email address will not be published.