করোনাভাইরাস নাম কেন?

সার্স এবং মার্স’র পর এবার করোনা ভাইরাস আতঙ্কে কাঁপছে পৃথিবী। ২০১৯-এনসিওভি ভাইরাসটি করোনা ভাইরাস পরিবারেরই। কিন্তু এর নাম করোনা ভাইরাস কেন রাখা হলো? বছরের শুরু থেকেই গুগলে ‘করোনা বিয়ার ভাইরাস’ নিয়ে ‘সার্চ’ বেড়েছে। মানুষের এমনও ধারণা ছিল, জনপ্রিয় মেক্সিকান বিয়ার ‘করোনা এক্সট্রা বিয়ার’ থেকেই ছড়িয়েছে করোনা ভাইরাস। তাই এমন নামকরণ। তবে ওই বিয়ার কোম্পানি স্পষ্ট জানিয়েছে, এই ভাইরাসের সঙ্গে তাদের কোনও যোগাযোগ নেই।

তাহলে? বিজনেস ইনসাইডার বলছে, করোনা লাতিন শব্দ। স্প্যানিশ ভাষাতেও শব্দটি রয়েছে। আর করোনা বিয়ারের উৎস মেক্সিকো বলেই মানুষের এ বিভ্রান্তি।

প্রাচীন গ্রিক শব্দ করোন (পুষ্পমাল্য বা পুষ্পমুকুট) থেকে সপ্তদশ শতকের দিকে লাতিনে আসে করোনা শব্দটি। সূর্যের চারপাশে উজ্জ্বল যে আলোর বলয় (সাধারণভাবে পূর্ণগ্রাস গ্রহণের সময়ই কেবল দেখা যায়) রয়েছে, তা ওই মুকুটের মত দেখায় বলে জ্যোতির্বিদরা একেও করোনা বলেন। আবার ড্যাফোডিলের পাপড়ি বেষ্টনের মাঝে যে অংশটি ট্রাম্পেটের মত বেরিয়ে থাকে, সেটাকেও উদ্ভিদবিজ্ঞানে করোনা বলে।

ইলেকট্রন অনুবীক্ষণ যন্ত্রে দেখলে করোনা ভাইরাস পরিবারের সব সদস্যের মূল কাঠামো ঘিরে সেইরকম ট্রাম্পেট বা ফানেলের মত অসংখ্য কাঁটা দেখা যায়, যেন রাজমুকুটের উপর থরে থরে সাজানো দণ্ড। এসব মিলেই নাম হয়েছে করোনা ভাইরাস। যার খোঁজ মেলে ১৯৩০ সালের দিকে। মানুষের দেহে প্রথমবারের মত করোনা ভাইরাস সংক্রমণের তথ্য পাওয়া যায় ষাটের দশকে, জানানো হয় বিজ্ঞানবিষয়ক জার্নাল সায়েন্সডাইরেক্ট ডটকমের নিবন্ধে।