করোনাভাইরাস: খুলনায় একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু, বগুড়ায় লকডাউন

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত এক দিনে সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে। এই দিনে মৃত্যু হয়েছে ২২ জনের।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিভাগীয় পরিচালক রাশেদা সুলতানা শনিবার দুপুরে এ তথ্য জানিয়েছেন।

এদিকে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে আজ শনিবার মধ্যরাত থেকে বগুড়া শহরে সর্বাত্মক লকডাউন কার্যকর হবে।

আজ বগুড়া জেলা প্রশাসক মো. জিয়াউল হক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই ঘোষণা দিয়েছেন।

রাত ১২টা থেকে বগুড়া শহর এলাকায় আগামী সাত দিন এই লকডাউন কার্যকর থাকবে। এর আগে গত বছরের ২১ এপ্রিল প্রথম দফায় জেলাজুড়ে লকডাউন ঘোষণা দিয়েছিল জেলা প্রশাসন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, লকডাউন চলাকালে শহরের দোকানপাট, শপিং মল, মার্কেট, বিপণিবিতান এবং সব ধরনের যানবাহন চলাচলও বন্ধ থাকবে। বিয়ে, জন্মদিন, বনভোজন ও পার্টিসহ সামাজিক অনুষ্ঠান ও রাজনৈতিক সমাবেশ করা যাবে না। শহরের সব সাপ্তাহিক হাট, পর্যটন কেন্দ্র, রিসোর্ট, কমিউনিটি সেন্টার বন্ধ রাখতে হবে। ফুটপাতে কোনো দোকান বসতে পারবে না।

খুলনাতেও কোভিড সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার আশঙ্কাজনকভাবে বেড়ে যাওয়ায় খুলনায় মঙ্গলবার থেকে ৭ দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।­

শনিবার দুপুরে জেলা করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

খুলনায়, গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত ২২ জনের মধ্যে কুষ্টিয়া জেলায় সর্বোচ্চ সাত জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে আরও ৬২৫ জনের কোভিড শনাক্ত হয়েছে; সুস্থ হয়েছেন ১৯২ জন।

এর আগে এই বিভাগে কোভিডে আক্রান্ত হয়ে গত বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ ১৮ জনের মৃত্যু হয়। তবে পরদিন আট জনের মৃত্যু হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.