কক্সবাজারে বেড়াতে গিয়ে দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার

কক্সবাজারে বেড়াতে যাওয়া এক নারীকে অপহরণের পর একটি হোটেলে আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

গতকাল (২২ ডিসেম্বর) বুধবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে ঘটনার শিকার নারীকে ওই গেস্ট হাউজ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশের বিশেষ বাহিনী র‍্যাব।

র‍্যাব ১৫ সূত্রে জানা যায়, স্বামী এবং আট মাস বয়সী সন্তানকে নিয়ে ওই নারী ঢাকা থেকে কক্সবাজারে বেড়াতে গিয়েছিলেন।

ধর্ষণের অভিযোগ তোলা নারীর বরাত দিয়ে র‍্যাব জানায়, “গতকাল বিকেলে বীচে ওই ভদ্রমহিলার সাথে ওদের ছোটখাটো একটা ধাক্কা লাগার ঘটনা ঘটে, তাদের সাথে কথা কাটাকাটি হয়। এরপর ওরা ওনাদেরকে ফলো করা শুরু করে।”

“এক পর্যায়ে কলাতলি পয়েন্ট এলাকা থেকে একটি অটোরিকশায় ওই নারীকে জোর করে তুলে নিয়ে আসে একটি স্থানীয় গেস্ট হাউজে। এরপর তাকে অনেক রাত পর্যন্ত আটকে রাখা হয়।”

ওই নারীর বরাত দিয়ে র‍্যাব আরও জানায়, ধর্ষণের ঘটনায় তিনজন জড়িত ছিল।

আটক থাকা অবস্থায় তার স্বামী ও সন্তানকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে বলেও ওই নারী আইন-শৃঙ্খলারক্ষাকারী বাহিনীকে জানিয়েছেন।

স্ত্রীকে তুলে নিয়ে যাওয়ার পর র‍্যাবের সাথে যোগাযোগ করেন তার স্বামী। তার কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওই নারীকে উদ্ধার করে র‍্যাব।

ওই নারীকে পরবর্তীতে ওয়ান স্টপ ক্লিনিকে নিয়ে যাওয়া হয় বলেও জানা যায়।

এই ঘটনায় হোটেলের মালিককে ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগে আটক করা হয়েছে।

এদিকে ধর্ষণে মূল অভিযুক্তর বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলা রয়েছে বলে জানিয়ে জানিয়েছেন মোহাম্মদ খায়রুল ইসলাম।

ঘটনার সঙ্গে যারাই জড়িত থাকুক, তাদের কঠোর শাস্তি পেতে হবে। বিষয়টি নিয়ে অধিকতর তদন্ত চলছে। মামলার বিষয়টিও প্রক্রিয়াধীন –বলে জানিয়েছে র‍্যাব -১৫।

Leave a Reply

Your email address will not be published.