উপেক্ষিত স্বাস্থ্যখাত, চূড়ান্ত বিপর্যয়ের মুখে মানুষের জীবন: ছাত্র ইউনিয়ন

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা, বিশ্ব মুদ্রা তহবিল সহ চীন, আমেরিকা, কানাডার মতো দেশ “জীবন ও জীবিকা রক্ষা”র জন্য স্বাস্থ্য খাতকে অগ্রাধিকার দিয়ে সমন্বিত প্যাকেজ ঘোষণার নির্দেশনা দিলেও করোনা মোকাবেলায় স্বাস্থ্য সুরক্ষাকে অগ্রাধিকার না দিয়ে বাংলাদেশ সরকার “অর্থনীতি বাঁচলে জীবন বাঁচবে’ নীতি গ্রহণ করেছে বলে মনে করছে বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন।

সোমবার (৬ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি হাসান নোবেল এবং সাধারণ সম্পাদক অনিক রায় বলেন, সরকারের এই নীতির ফলে আজ চূড়ান্ত বিপর্যয়ের মুখে মানুষের জীবন।

নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে বলেন, বৈশ্বিক মহামন্দার প্রচন্ড হুমকির মুখে দাঁড়িয়েও প্রবৃদ্ধির হার ঠিক রাখতে অর্থনৈতিক পরিস্থিতি স্বাভাবিকের চেয়ে খারাপ হওয়ার আগেই করোনার ক্ষতি মোকাবিলায় এবং সম্ভাব্য ক্ষতি পুষিয়ে নিতে শ্রমিকদের বেতন দিয়ে(!) সমস্ত কারখানা, ব্যবসা, রপ্তানি চালু রাখার জন্যে ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা সাধুবাদ পাওয়ার যোগ্য হলেও করোনার এই মহাদুর্যোগের সময় সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার প্রাপ্য স্বাস্থসেবা ও সুরক্ষায় সুদূরপ্রসারী বিনিয়োগ দূরের কথা, এই দুর্যোগ চলাকালিন সময়েও প্রয়োজনীয় বরাদ্দ নিশ্চিত না করার মধ্য দিয়ে আদতে জনগণকে দুরুহ মৃত্যুঝুঁকিতে ফেলে দিয়ে বাংলাদেশকে গোরস্থানে রুপান্তরিত হওয়ার রাস্তা প্রশস্ত করছে সরকার।

প্রতিরক্ষা খাতে ৩২,০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়ে অনাগত শত্রু মোকাবেলায় দেশের মানুষের ট্যাক্সের এত বড় অংশ ব্যয় হতে পারলে, অসীম শক্তিশালী অদৃশ্য শত্রুর আক্রমনে সরকারের কার্পণ্য নিয়ে প্রশ্ন তোলার পাশাপাশি নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, এই রোগ প্রাদুর্ভাবের প্রাথমিক সময় জানুয়ারি থেকেই স্বাস্থ্যখাতের প্রস্ততি নিয়ে বিভিন্ন বিশেষজ্ঞসহ বিভিন্ন মহল থেকে অনুসন্ধান, উদ্বেগের প্রেক্ষিতে সরকারের তরফ থেকে সবরকম প্রস্ততি, কিটের পর্যাপ্ত মজুদ এবং সব রকম ব্যবস্থা গ্রহন করা আছে বলে আশ্বস্থ করা হলেও বাস্তবতা হচ্ছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বেশি বেশি টেষ্ট করার কথা বললেও নমুনা সংগ্রহ এবং পরীক্ষা করার জন্য আমাদের দেশের স্বাস্থ্য অবকাঠামো এখনো পুরোপুরি তৈরি করা সম্ভব হয়নি। এখন যাও কিছুটা সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে কিন্তু প্রয়োজনের তুলনায় অত্যন্ত নগণ্য।

দেশে ক্রমাগত করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলেছে এবং আমাদের দেশের মেডিকেল অবকাঠামো করোনা মোকাবেলায় প্রস্তুত না এই সত্য জলের মত স্পষ্ট হওয়ার পরও স্বাস্থ্যখাত নিয়ে সরকারের লাপরোয়া ভাব মানুষের জীবনকে চূড়ান্ত বিপর্যয়ের মুখে পতিত করছে বলেও জানান নেতৃবৃন্দ।