ইথিওপিয়ায় দুর্ভিক্ষ চলছে: জাতিসংঘের ত্রাণ বিষয়ক প্রধান

ইথিওপিয়ার উত্তরাঞ্চলে এখন দুর্ভিক্ষ চলছে বলে অভিমত দিয়েছেন জাতিসংঘের মানবিক ত্রাণ সাহায্য বিষয়ক প্রধান মার্ক লোকক।

তিনি ইথিওপিয়ার উত্তরাঞ্চলের পরিস্থিতি বিশ্লেষণ করে দেখার পর এ প্রসঙ্গে অভিমত ব্যক্ত করে বলেন বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে আজ বলা হয়।

তিনি বলেন, “সেখানে পরিস্থিতি আরো খারাপের দিকে যাচ্ছে।”

জাতিসংঘের সহযোগিতা ও বিভিন্ন সংস্থার উদ্যোগে পরিচালিত ওই সমীক্ষায় দেখা গেছে যুদ্ধ-বিধ্বস্ত টিগ্রে অঞ্চলে সাড়ে তিন লাখ মানুষ “গুরুতর সংকটের” মধ্যে বসবাস করছে।

ওই অঞ্চলে সরকারি বাহিনী ও বিদ্রোহীদের মধ্যে গত বছরের নভেম্বর মাস থেকে শুরু হওয়া যুদ্ধের কারণে ১৭ লাখ মানুষ স্থানচ্যুত হয়েছে।

সমীক্ষার রিপোর্টে বলা হয়েছে, মে মাস পর্যন্ত ৫৫ লাখ মানুষ খাদ্য সঙ্কটে ভুগেছে এবং সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এই পরিস্থিতির আরো অবনতি ঘটবে।

এধরনের বিশ্লেষণকে বলা হয় ইন্টিগ্রেটেড ফেজ ক্লাসিফিকেশন বা আইপিসি। জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থা এবং বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংস্থা মিলে এই সমীক্ষা প্রতিবেদন তৈরি করে থাকে।

এই আইপিসি পর্যালোচনায় দেখা গেছে টিগ্রে অঞ্চলে খাদ্য সঙ্কট “বিপর্যয়কর” পরিস্থিতিতে চলে গেছে যার ফলে ক্ষুধা ও মৃত্যু বেড়ে গেছে।

এরকম পরিস্থিতিতে জাতিসংঘের বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচি এবং শিশু বিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফ সঙ্কট মোকাবেলায় জরুরি ভিত্তিতে পদক্ষেপ গ্রহণের আহ্বান জানিয়েছে।

তবে এই বিশ্লেষণের সঙ্গে একমত নয় ইথিওপিয়ার সরকার। তারা বলছে, ওই অঞ্চলে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতির সাথে সাথে তারা সেখানে মানবিক ত্রাণ সাহায্যের কর্মসূচিও বিস্তৃত করছে।

উল্লেখ্য, এর আগে ১৯৮৪ সালে টিগ্রে এবং প্রতিবেশী ওল্লো প্রদেশে খরা ও যুদ্ধের কারণে দুর্ভিক্ষের সৃষ্টি হয়েছিল যাতে ছয় থেকে দশ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়েছিল বলে ধারণা করা হয়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published.