‘ইউরো ২০২০’ –এর পর্দা উঠছে আজ মধ্যরাতে

আজ বাংলাদেশ সময় মধ্যরাত থেকে পর্দা উঠছে ইউরোপের ফুটবলের শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের টুর্ণামেন্ট ‘ইউরো ২০২০’ –এর।

রোমের স্তাদিও অলিম্পিকোতে বাংলাদেশ সময় আজ রাত ১টায় ইতালি ও তুরস্কের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হবে ইউরোর ষোড়শ আসরের যাত্রা।

আজ থেকে ৯ বছর আগেই ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের ৬০ বছর পূর্তি উপলক্ষে ২০২০ আসরকে বিশেষ রূপ দেওয়ার ঘোষণা এসেছিল। সেই বিশেষ প্রেক্ষিতে কোনো এক দেশের মাটিতে নয়, ইউরোপের প্রতিটি প্রান্তে ফুটবল মহাযজ্ঞের পরিকল্পনা করেছিল উয়েফা।

ইউরো’র এবারের আসর ২০২০ এ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও করোনাভাইরাসের মহামারির কারণে আসরটি এক বছর পিছিয়ে গেলেও পরিবর্ত্ন আসেনি নামে।

পরিকল্পনায় প্রাথমিকভাবে ইউরোপের ১২টি শহরে ৫১ ম্যাচের আসরটি আয়োজনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছিল। সেভাবেই এগিয়ে নেওয়া হচ্ছিল সবকিছু তবে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি বিবেচনায় স্বাগতিক শহরের তালিকা থেকে কাটা পড়েছে আয়ারল্যান্ডের ডাবলিন। ওই শহরে নির্ধারিত ম্যাচগুলো ভাগ করে দেওয়া হয়েছে রাশিয়ার সেন্ট পিটার্সবুর্গ ও লন্ডনের ওয়েম্বলিতে। সব মিলিয়ে ১১টি শহরে হচ্ছে এবারের খেলা।

এছাড়াও স্পেনের স্বাগতিক শহর শুরুতে ছিল বিলবাও। একই কারণে সেটিও বদলে গেছে, ওখানকার ম্যাচগুলো এখন হবে সেভিয়ায়।

উল্লেখ্য, ইতালি ও তুরস্কের ম্যাচ দিয়ে মাঠে গড়াবে প্রতিযোগিতাটির ষোড়শ আসর। গ্রুপ পর্ব শেষ হবে আগামী ২৩ জুন।

নকআউট পর্ব শুরু ২৬ জুন, শেষ ষোলো চলবে ২৯ জুন পর্যন্ত। কোয়ার্টার-ফাইনাল হবে আগামী ২ ও ৩ জুলাই। সেমি-ফাইনালের ম্যাচ দুটি হবে ৬ ও ৭ জুলাই।

ওয়েম্বলিতে ১১ জুলাইয়ের ফাইনাল দিয়ে পর্দা নামবে জমকালো আসরের।

গ্রুপ পর্ব থেকে নকআউট রাউন্ডে ওঠার প্রক্রিয়াটা ঠিক ২০১৬ আসরের মতোই।

২৪টি দল ছয় গ্রুপে (প্রতিটিতে ৪টি করে) ভাগ হয়ে শুরুর ধাপে অংশ নেবে। প্রতিটি গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ এবং তৃতীয় হওয়া দলগুলোর মধ্যে সেরা চারটি মিলে হবে ‘রাউন্ড অব সিক্সটিন।’

গ্রুপ পর্বের সব ম্যাচ শেষে একাধিক দলের পয়েন্ট সমান হলে গোল পার্থক্যে এগিয়ে থাকা দল পরের রাউন্ডে যাবে। তাতেও পার্থক্য করা না গেলে ক্রমান্বয়ে দেখা হবে-বেশি গোল করা, বেশি জয় পাওয়া, ফেয়ার প্লে অবস্থান।

ইউরো ২০২০ এর গ্রুপ:

গ্রুপতুরস্ক, ইতালি, ওয়েলস, সুইজরল্যান্ড।

গ্রুপ-বিডেনমার্ক, ফিনল্যান্ড, বেলজিয়াম ও রাশিয়া।

গ্রুপ-সিনেদারল্যান্ডস, ইউক্রেন, অস্ট্রিয়া, নর্থ মেসিডোনিয়া।

গ্রুপ-ডিইংল্যান্ড, ক্রোয়েশিয়া, স্কটল্যান্ড ও চেক রিপাবলিক।

গ্রুপ-ই: স্পেন, সুইডেন, পোল্যান্ড, স্লোভাকিয়া।

গ্রুপ-এফহাঙ্গেরি, পর্তুগাল, ফ্রান্স ও জার্মানি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.