আফগানিস্তানের পরবর্তী পদক্ষেপ কি হবে; মঙ্গলবার জি-৭ বৈঠক

আফগানিস্তানের তালেবান শাসকদের সঙ্গে বিশ্বের কূটনৈতিক সম্পর্ক কী হবে, তা নিয়ে মঙ্গলবার জরুরি বৈঠকে বসছে জি-৭ দেশগুলি। বলা হচ্ছে আফগানিস্তান নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক হবে বৈঠকে।

জানা গেছে বৈঠক পরিচালনা করবে যুক্তরাজ্য। সে দেশের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ইতিমধ্যেই তালেবানের আফগানিস্তান নিয়ে একাধিক বিষয় সামনে এনেছেন। জনসন বুঝিয়ে দিয়েছেন, যুক্তরাজ্য তালেবান শাসকদের মেনে নিতে চায় না।

জার্মানভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ডিডব্লিউ বাংলা (অনলাইন)-এর এক প্রতিবেদনে এসব খবর উঠে আসে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, বরিস জনসন চাইছেন, জি-৭ এর বৈঠক থেকে তালেবানের বিরুদ্ধে একাধিক নিষেধাজ্ঞা জারি করতে।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্র জানিয়েছে, তালেবান কী নীতি নেয়, তা দেখেই তারা সিদ্ধান্ত চাইছে।

তবে জি-৭ এর বৈঠকে যে আফগানিস্তানের পরিস্থিতি নিয়ে যথেষ্ট উত্তপ্ত আলোচনা হবে, কূটনীতিকদের কাছে তা স্পষ্ট। আফগান শরণার্থীদের নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হওয়ার কথা।

এদিকে রোববার হোয়াইট হাউস থেকে বাইডেন জানিয়েছেন, সপ্তাহান্তে প্রায় ১১ হাজার মার্কিন নাগিরক এবং আফগানকে উদ্ধার করে দেশের বিমানে তোলা হয়েছে। আগামী এক সপ্তাহ উদ্ধারকাজে আরো জোর দেওয়া হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।

বাইডেনের কথায়, ”৩১ অগাস্টের মধ্যেই যাতে উদ্ধারকাজ শেষ হয়, সেই চেষ্টাই চালাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।”

বস্তুত, উদ্ধারকাজে গতি আনতে সেনার বিমানের পাশাপাশি সিভিলিয়ান এবং কমার্শিয়াল বিমানও আফগানিস্তানে পাঠানো হচ্ছে। প্রতিদিন যাতে অনেক বেশি মানুষকে দেশে ফেরানো যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.