আন্দোলনের মুখে কার্টুনিস্ট কিশোরের জামিন

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে প্রায় এক বছর পর জামিনে মুক্ত হলেন কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর।

আজ (৩ মার্চ) এক আদেশে ঢাকার হাইকোর্ট কিশোরকে ছয়মাসের জন্য জামিন দেয়া দিয়েছে।

এর আগে কার্টুনিস্ট কিশোর ও একই মামলার আসামি মুশতাক আহমেদের ছয়বার জামিন আবেদন নাকচ হয়েছিলো আদালতে।

মুশতাক আহমেদ কারাগারে থাকাকালে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি, বৃহস্পতিবার মৃত্যুবরণ করেন।
প্রসঙ্গত, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন চালুর পর থেকেই দেশের বেশিরভাগ মানুষই এর বিরুদ্ধে সমালোচনা ও আন্দোলন করে আসছে। কারাবন্দী অবস্থায় এই আইনের বিরুদ্ধে আন্দোলন আরও তীব্রতর হতে থাকে। এই আন্দোলন চলাকালীন সময়েই কার্টুনিস্ট কিশোর ছয় মাসের জন্য জামিন পেলেন।

এর মধ্যে গত বৃহস্পতিবার মুশতাক আহমেদ কারাগারেই অসুস্থ হয়ে মারা যান।

লেখক মুশতাক আহমেদ ও কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোরের জামিনের আবেদনের শুনানির নির্ধারিত দিন সোমবার আদালতে মুশতাক আহমেদের মৃত্যুর খবর আদালতে আইনজীবীরা অবহিত করেন।

উল্লেখ্য, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দায়ের করা মামলায় আটক কার্টুনিস্ট কিশোরের জামিনের আবেদন করলে আদালত তেসরা মার্চ আদেশ দেয়ার কথা জানান।

এর আগে রোববার তাকে রিমান্ডে নেয়ার আবেদন নাকচ করেছিলো ঢাকার একটি আদালত।

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের মে মাসে বাংলাদেশের পুলিশ কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর এবং লেখক মুশতাক আহমেদকে ঢাকার বাসভবন থেকে গ্রেফতার করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে।

তাদের বিরুদ্ধে “ফেসবুকে করোনাভাইরাস নিয়ে গুজব ও মিথ্যা তথ্য ছড়ানো”, “জাতির জনকের প্রতিকৃতি”, “জাতীয় সংগীত” এবং “জাতীয় পতাকাকে” অবমাননার অভিযোগ আনা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.